বাংলাদেশ, শনিবার, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কমলগঞ্জে মুর্তাগাছ কাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত-৫ : অভিযোগ দায়ের

 

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) উপজেলা সংবাদদাতা

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর ইউনিয়নের রাধানগর গ্রামে মুর্তা গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে সোমবার ২৩ নভেম্বর সকালে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ৫ জন আহত হয়েছেন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। উক্ত ঘটনায় কমলগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাধানগর গ্রামের মৃত ইদ্রিছ মিয়ার ছেলে মতিউর মিয়ার পরিবারের সাথে প্রতিবেশী মৃত সুন্দর মিয়ার ছেলে রুজু মিয়া(৪০) ও ফজলু মিয়া (৩০), ছবির মিয়ার ছেলে ছবুর মিয়া (৩৫) ও ফখরুল মিয়া (২৫)’র মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। সোমবার সকালে রুজু মিয়া বিরোধপূর্ণ জমিতে মুর্তা গাছ কাটতে গেলে মতিউর মিয়া তাতে বাঁধা দেন। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এতে মতিউর মিয়ার পক্ষের ৪জন, রুজু মিয়ার পক্ষের ১ জন আহত হন।

আহত মতিউর মিয়া জানান, আমি সোমবার সকালে ঘর থেকে কাজে বের হলে দেখি আমার জমির সীমানার মুর্তা গাছ রুজু মিয়া কেটে নিয়ে যাচ্ছে। আমি তাকে মুর্তা গাছ কাটার কারন জানতে চাইলে পুর্ব-পরিকল্পনা অনুযায়ী ঊৎ পেতে থাকা রুজু মিয়ার পরিবার ও তার ভাড়া করা লোক আমার সাথে ঝগড়া শুরু করে, আমাকে মারতে শুরু করে। এক পর্যায়ে তারা আমাকে ধরে নিয়ে তাদের ঘরের পিলারের সাথে বেঁধে আমাকে এলোপাথারি প্রহার করে। আমার চিৎকার শুনে আমার পরিবার, দুই ছেলে আমাকে উদ্ধার করতে ছুটে আসলে তাদেরকেও নির্যাতন করে, তাদের নির্যাতনে আমার ছেলে মনিম মিয়ার পা ভেঙ্গে গেছে, বর্তমানে সে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। হাল্লা চিৎকার শুনে প্রতিবেশী কমরু মিয়ার ছেলে এহসান হোসেন এসে আমাকে তাদের ঘরের পিলারের বাঁধন থেকে মুক্ত করেন।

এহসান হোসেন বলেন, আমি হাল্লা চিৎকার শুনে গিয়ে দেখি মতিউর মিয়া, রুজু মিয়ার ঘরের পিলারের সাথে বাঁধা, মতিউর মিয়ার নাক দিয়ে রক্ত ঝড়ছে। আমি তাদেরকে আল্লাহ-রাসুলের দোহাই দিয়ে মতিউর মিয়াকে বাঁধন থেকে মুক্ত করি।

রুজু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মুঠোফোনে জানান, মতিউরদের সাথে আমাদের জমিজমা নিয়ে আগে থেকেই বিরোধ চলে আসছে। ঘটনার দিন আমরা মতিউর মিয়াকে পিলারের সাথে বেঁধে রাখিনি, সামান্য হাতাহাতি হয়েছে, এর বেশি কিছু নয়।

কমলগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) মো. সোহেল রানা জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে আজকে তদন্তে গেলে মারামারির ঘটনার সত্যতা পাই, আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তিনি আরো জানান, উভয় পক্ষের মধ্যে জমির সীমানা নিয়ে পুর্ব বিরোধ চলে আসছে।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply