বাংলাদেশ, বুধবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দ্বিতীয় দিনের মতো অনশন বশেমুরবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষায় অপেক্ষমাণ শিক্ষার্থীদের!

সজিবুর রহমান
দ্বিতীয় দিনের মতো অনশন করছেন বশেমুরবিপ্রবি ২০১৯-২০ সেশনে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ অপেক্ষমাণ শিক্ষার্থীরা।দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন ভাঙাবেন না তারা।শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে এমনই জানা গেছে।
এর আগে গত মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে অনশন৷ ও অবস্থান কর্মসূচি শুরু করে ২০১৯-২০ সেশনে ভর্তি হতে না পারা শিক্ষার্থীরা।দ্বিতীয় দিনের দিন তারা সেখানেই অবস্থান করছেন।
শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে তারা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন ও অবস্থান কর্মসূচি থেকে সরবেন না।তারা বলেন,ভিসি স্যার আমাদের শনিবার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছেন।আমরা ন্যায্য দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত এখান থেকে নড়বো না।
মঙ্গলবার রাত ১১ টার দিকে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সাথে দেখা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড একিউএম মাহবুব এর পিএস।
এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এ কিউ এম মাহবুব  বলেন “রিজেন্ট বোর্ড ও ইউজিসির অনুমতি ব্যতীত কিছু করতে পারবো না। তিনি বলেন,আমি নিয়মের বাইরে যেতে পারি না। তারা স্মারকলিপি দিলে আগামী মাসে রিজেন্ট বোর্ডের সভা বসলে বিষয়টি উত্থাপন করা হবে।ভর্তি প্রক্রিয়া  শেষ হয়ে গেছে,বছর শেষে তাদের তো ভর্তি নেওয়া যায় না”।
ভর্তি কমিটির সভাপতি প্রফেসর আব্দুস সাত্তার বলেন,”উপাচার্য স্যার সহ ১০ সদস্যর একটি কোর কমিটি আছে।আমাদের ভর্তি নেওয়ার কথা ছিলো আমরা ভর্তি নিছি।থার্ড ওয়েটিং পর্যন্ত ডেকেছি।এখন কোর কমিটি সিদ্ধান্ত নেবে।
তাছাড়া,নতুন বিশ্ববিদ্যালয় হওয়ায় আমাদের রুম ও শিক্ষক কম।সে হিসেবে শিক্ষার্থী বেশি।এজন্য ইউজিসি আপত্তি জানিয়েছেন।
তার বক্তব্যে আগামী শিক্ষাবর্ষে মোট আসন সংখ্যা অর্ধেক হওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।”
উল্লেখ্য,বশেমুরবিপ্রবিতে ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ২৭৫০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি নেওয়ার কথা থাকলেও ৪৪৪ টি আসন ফাঁকা রাখা হয়।প্রশাসন থেকে অপেক্ষমাণ শিক্ষার্থীদের ভর্তি নেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হলেও বিনা নোটিশে ভর্তি কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply