বাংলাদেশ, বুধবার, ২রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চলে এসেছে শীতের আমেজ,গাছিরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন আগাম গুড় উৎপাদনের।

সজিবুর রহমানঃ
বিজ্ঞানীদের গবেষণায় একজন মানুষের দৈনন্দিন খাবারের তালিকায় গুড় বা চিনি অপরিহার্য।গুড় উৎপাদন হয় খেজুরের রস থেকে।যা আমাদের দেশে শীতকালে উৎপাদন করা হয়।শীতের আমেজের সাথে সাথে গাছিরা প্রস্তুতি নেয় গুড় উৎপাদনের।

চুয়াডাঙ্গা জেলা গুড় উৎপাদনে বাংলাদেশের অন্যতম অঞ্চল।শীতের আমেজের সাথে সাথে চুয়াডাঙ্গার চাষিরা তাই আগাম প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন।

বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ গুড়ের বাজার বসে চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জে।এছাড়া এই অঞ্চলের আরও অনেক জায়গায় গুড়ের বাজার বসে।চাষিরা গুড় উৎপাদন করে এগুলো এসব বাজারে বিক্রি করে।যা তাদের দৈনন্দিন আয়ের অন্যতম উৎস।

সকালের কুয়াশায় চাষিরা খেজুর গাছ থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করে আগুনে জ্বালিয়ে গুড় উৎপাদন করে এই গুড় স্থানীয় বাজারে বাজারজাত করে।এসব গুড় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পৌছায়।যেসব এলাকায় গুড় উৎপাদন হয় না,সেসব এলাকায় এসব গুড় চাহিদা পূরণ করে।

চুয়াডাঙ্গার চাষিরা গুড়ের ন্যায্য দাম পাওয়ার জন্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।তারা যেন চাঁদাবাজির উর্ধ্বে থেকে অবাধে গুড় উৎপাদন করে বাজারে বিক্রি করতে পারে এটা এ অঞ্চলের চাষিদের দাবি

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply