বাংলাদেশ, রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পতেঙ্গা-ইপিজেড থেকে শহরগামী চলাচলে নিদারুণ বাঁধা সড়কের বেহাল দশা

 

 

নগরীর অত্যন্ত ব্যস্ততম পতেঙ্গা-ইপিজেড থেকে শহরগামী গাড়ী চলাচলে নিদারুণ বাঁধা হয়ে দাড়িঁয়েছে সড়কের বেহাল দশা।

সিইপিজেড-কেইপিজেড(স্টীল মিল)হওয়াতে প্রতিদিন লক্ষাধিত নারী শ্রমিক ও যাত্রী সাধারণের চলাচলের একমাত্র পথ এম.এ আজিজ সড়ক,বিমানবন্দর ভিআইপি সড়কের ৩০ফুটের এখন ১০ফুটে (উন্নয়নের কাজের জন্য) দখলে আছে ।

এই ১০ফুটে আবার ভাসমান হকার,সবজির দোকান,টংদোকান কিংবা দলীয় নেতার আর্শিবাদ পুষ্টরা নিত্যপন্যর দোকান বসিয়ে চলাচলে প্রতিবন্ধিকতা সৃষ্টি করছে।এগুলোর প্রতিবাদ করলেই দুষ্ঠলোকের ঝড়ো হয়ে প্রতিবাদকারীদের নানান রকম হয়রানী হেনাস্তা করেন।

প্রধান সড়কের অধিকাংশ স্থান ৩৯ ও ৪০নং ওয়ার্ড(সিমেন্ট ক্রসিং-কাটগড় বাজার) পর্যন্ত সিডিএর উন্নয়ন কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে।সেই কাজের জন্য সড়কের মাঝের দুই পাশ প্রায় ৩০ফুট টিনের বেড়া দিয়ে ঘেরা আছে।যার কারণে স্বচ্ছভাবে যাত্রী সাধারণের বিষন্ন/নিদারুণ কষ্ট।এর মধ্যে সামন্য বৃষ্ঠিতেই পতেঙ্গা-ইপিজেড থেকে শহরগামী চলাচলে একমাত্র পথ এম.এ আজিজ সড়কটি আজ মৃত্যুকূপে পরিনত হতে চলেছে।

যা ১/২দিনের মধ্যে কোমর সমান গর্ত গুলো জরুরী ভিত্তিতে মেরামত না করলে এই দক্ষিন হালিশহর-পতেঙ্গাবাসীর জন্য সড়কই ভয়ে আনবে  বিপদ…! আর শুক্লদিনে বা বেশী রৌদ্র দিনে উন্নয়ন কাজের ইট,মাটি,বালি ও সিমেন্ট-কংকর গুড়া বাতাসে উড়ে এলাকায় শ্বাস-কার্ষ সহ বায়ূবাহিত রোগ ছড়াচ্ছে বলে অভিজ্ঞ চিকিৎসকরা প্রতিবেদককে জানিয়েছেন।এই বায়ূ দূষণ প্রসঙ্গে উন্নয়ন প্রকল্পের (সিডিএ),কর্তব্যরত কর্মকর্তাদের অভিযোগ জানালে যথাযথভাবে সুনজর দিচ্ছেন না বলে স্থানীয় বাসিন্দরা জানান।

এ প্রসঙ্গে উভয় ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রতিনিধিকে বল্লে, সেটি সিডিএর কাজ এবং সওজ(বিশেষ প্রকল্পের)কাজ তাদের বলার জন্য নির্দেশ প্রদান করে।সড়কের বেহাল দশাটি ৫ও৬জুলাই বৃষ্টির কারণে ২০/৩০গজ দুরত্ব যেতেই বিশাল বিশাল গর্ত গুলো কোমর সমান হয়ে বিষন বিপদের হাতছানি দিচ্ছে।

 

 

আরো খবর

Leave a Reply