বাংলাদেশ, বুধবার, ১৫ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সাতকানিয়ায় প্রবাসী পরিবার হয়রানীর শিকার, আইন মানছে না সন্ত্রাসী নাছির

সাতকানিয়া প্রতিনিধি

সাতকানিয়ায় এক প্রবাসী পরিবার হয়রানীর শিকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছে। আইন পক্ষে থাকলেও সন্ত্রাসী নাছির এসব পাত্তাই দিচ্ছে না। ফলে  প্রবাসী তৌহা মিয়া বিদেশে আর তার স্ত্রী – স্বজনেরা নিজ দেশেও শান্তিতে নেই।

খবর নিয়ে জানা গেছে, সাতকানিয়ার ছাদাহা গ্রামের মৃত আব্বাস আলীর ছেলে তৌহা মিয়া দীর্ঘদিন ধরে দুবেলা দুমুঠো খাবার ও অর্থনেতিক দৈন্যতা গোছানোর জন্য দুবাই যায়। সে বিদেশের কষ্টার্জিত সমুদয় টাকা দিয়ে সাতকানিয়ার ছাদাহা গ্রামের ফজুরপাড়ার মৃত আব্বাস আলীর ছেলে মুহাম্মদ তৌহা মিয়া ঢেমশা গ্রামের হাজার খিল এলাকাতে হাইওয়ে সড়কের দক্ষিন পাশে ইকু কার ওয়াশের সামনে সকল কাগজপত্র সঠিকমূলে ৬ গন্ডা জায়গা ক্রয় করে। সে ওই জায়গায় গেইটসহ পাকা ওয়াল দিয়ে একটি ঘর বানানোর প্রস্তুতি নেয়। এই সময় কেওচিয়ার সামিয়ার পাড়ার মৃত ইসমাইলের পুত্র মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন এই জায়গা সে পাবে বলে দাবী করে। তখন তৌহা মিয়া অজানা আশংঙ্খা ও ভয়ভীতি এড়ানোর জন্য সাতকানিয়া থানায় গত ১৬মার্চ ২০১৯ সনে একটি সাধারণ ডাইরী করেন। যার নং ৭৯৩/ ১০। এই ডাইরীর অনুকুলে চৌকষ পুলিশ অফিসার এসআই মাহমুদুল করিম নিয়মানুসারে কাগজপত্র দেখে সার্বিক তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়। ওই প্রতিবেদনে মোহাম্মদ নাছির  উদ্দিনএখানে কোন জায়গা পাবার কোন তথ্য নেই।  এই সময় সে পুলিশকে লিখিত অঙ্গীকারও দেয়। এতে ক্ষী্প্ত হয়ে উঠে সন্তাসী নাছির। এর আগে পিবিআই এই বিষয়ে একটি রিপোর্ট দেয় প্রবাসী তৌহা মিয়ার অনুকূলে।

গত ৩০ এপ্রিল ২০১৯ সালে রাতে নাছির তার ভাইসহ অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসী ও বখাটে মাদকসেবী ১০/১৫জন যুবকদের নিয়ে  হঠাৎ  হামলা চালায় ও দারােয়ান মোরশেদুল আলমকে মারধর করে ও ঘরে ভাংচুর চালায়। এই সময় নিমার্ণের জন্য মজুদ করা নিমার্ণ সামগ্রী  নাছিরের লোকজন নিয়ে যায় ও নির্মিয়মান দেয়াল ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। সু্ত্রমতে, ওই সময় ৩ লাখ টাকার  ক্ষতি সাধিত হয়। এ ঘটনার পর ক্ষতিগ্রস্হ প্রবাসী পরিবার সাতকানিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলা নং ১১,তারিখ ১২/৫/১৯। বর্তমানে নাছির মামলা প্রত্যাহার করার জন্য চাপ  দিচ্ছে ও অন্যাথায় প্রবাসী পরিবারের ক্ষতি করবে বলে হুমকি- ধমকি দিচ্ছে। অন্যদিকে প্রবাসী পরিবারটি ভয় ভীতির মধ্যে আজানা আশংঙ্খায় দিন যাপন করছে।

 

আরো খবর

Leave a Reply