বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ২রা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জঙ্গলখাইন উচ্চ বিদ্যালয় বার্ষিক পুরস্কার ও কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান

 

২০ এপ্রিল পটিয়ার ঐতিহ্যবাহী জঙ্গলখাইন উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃক অনুষ্ঠিত বার্ষিক পুরস্কার ও কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ  আলহাজ্ব সামশুল হক চৌধুরী বলেন, সু-শিক্ষায় শিক্ষত হয়ে শিক্ষার্থীদেরকে আগামী দিনে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে হবে। সাধনা ব্যতীত কোন ব্যক্তি লক্ষ্য অর্জনে সফল হতে পারে না। পড়ালেখার পাশাপাশি সহ-পাঠক্রমিক কার্যাবলীর উপর গুরুত্ব দেওয়ার জন্যে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি। অভিভাবকদের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করে বলেন, পরিবারে মা-বাবারা যেন তাদের সন্তানের সামনে এমন কোন ব্যবহার না করেন যাতে সন্তানের মনের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে মা-বাবাদের বিরত থাকার জন্যে অনুরোধ করেন। প্রাসঙ্গিকক্রমে তিনি বলেন, আগেকার দিনে স্কুলঘর ছিল কাঁচা, শিক্ষক-শিক্ষার্থী ছিল পাকা। বর্তমানে স্কুলঘর হচ্ছে পাকা, শিক্ষার্থী হচ্ছে কাঁচা। শিক্ষকদের অবহেলা এবং অভিভাবকদের অসচেতনতাই এর জন্যে দায়ী বলে তিনি মনে করেন। শিক্ষকদেরকে পাঠদানে আন্তরিক ও মনোযোগী এবং অভিভাবকদেরকে আরো সচেতন হওয়ার জন্যে তিনি নির্দেশনা প্রদান করেন। শ্রেণিকক্ষে মোবাইল ব্যবহারে সরকারের কঠোর আইন রয়েছে বিষয়ে উল্লেখ করে এর থেকে শিক্ষকদের সম্পূর্ণরূপে বিরত থাকার জন্যে নির্দেশ প্রদান করেন। প্রধান অতিথি আরো বলেন, সরকারি নিয়ম অনুসারে কোন ছাত্রীকে এসএসসি পাশ করার পূর্বে বিয়ে দেওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে শিক্ষার্থী এবং অভিভাবককে আরো সচেতন থাকার জন্যে আহ্বান করেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নবনির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জনাব মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, শিক্ষার্থীদেরকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে হবে। যেভাবে অন্যায়ের প্রতিবাদ করেছে ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি। প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হলে অন্যায়ের কাছে মাথা নত করা যাবে না। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পটিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব হাবিবুল হাসান। তিনি কৃতী শিক্ষার্থী, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় যারা বিজয়ী হয়েছে তাদেরকে ধন্যবাদ জানান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, প্রত্যাশির এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর জনাব মনোয়ারা বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম সামশুজ্জামান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক ও পটিয়া পৌরসভা মেয়র জনাব অধ্যাপক হারুন অর রশিদ, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জনাব শাহিদা আক্তার জাহান, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ লায়ন ইউনুস তালুকদার। সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আলহাজ্ব জনাব শাহাদাত হোসেন ফরিদ। উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাং ইসহাক। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক জনাব দিদারুল আলম ও মিসেস ফাতেমী সোহনী আরসালীন। বক্তব্য শেষে প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিরা কৃতী শিক্ষার্থী, খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন।

আরো খবর

Leave a Reply