শুরু হলো দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ‘গার্মেন্টেক চিটাগং মেলা

  প্রিন্ট
(Last Updated On: আগস্ট ১০, ২০১৮)

স্থানীয় তৈরি পোশাক ও চামড়া শিল্পের উন্নয়নের লক্ষ্যে আজ ৯ আগস্ট থেকে ১১ আগস্ট নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে এপারেল মেশিনারি ও সংশ্লিষ্ট পণ্য, সুতা ও বস্ত্র, গার্মেন্ট এক্সেসরিজ এবং সহায়ক সেবা বিষয়ক আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী গার্মেন্টেক চিটাগং-এর ২য় প্রদর্শনী শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিকেল ৩টায় প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। বিশেষ অতিথি বিজিএমইএ-এর প্রথম সহ-সভাপতি মইনউদ্দিন আহমেদ (মিন্টু), বিকেএমইএ-এর পরিচালক রাজীব দাশ সুজয়।

এএসকে ট্রেড এন্ড এক্সিবিশনস প্রা. লি. বাংলাদেশ-এর আয়োজনে ‘গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ২০১৮’ শীর্ষক এ মেলায় বাংলাদেশ ও বিদেশের প্রদর্শকরা সর্বশেষ এপারেল প্রযুক্তি, সম্মিলিত যন্ত্রপাতি, সুতা ও বস্ত্র, সহায়ক সেবা এবং ক্যাড/ক্যাম সমাধান প্রদর্শন করেন।

তৈরি পোশাক শিল্পের প্রসারণে সুবিধা পাওয়ার মতো অবস্থানে আছে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম। এটি প্রসারণ ও নতুন কারখানা স্থাপন এবং সরকারের এ অঞ্চল সহ সারাদেশে অসংখ্য অর্থনৈতিক অঞ্চলের ঘোষণার মাধ্যমে তৈরি পোশাক শিল্পের সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে বলে আশা করা যায়। এ প্রদর্শনীতে থাকছে ওভেন ও নিটের জন্য অসংখ্য ধরনের সেলাই মেশিন এবং সংশ্লিষ্ট স্পেয়ার পার্টস, বয়লার, লন্ড্রি মেশিনারি, কাটিং, স্প্রেডার, প্লটার ক্যাড/ক্যাম, ইআরপি সল্যুশন।

তৈরি পোশাক শিল্পে বিশ্বের ২য় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ বাংলাদেশ রপ্তানিতে ৫ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের লক্ষ্যে পৌঁছানোর দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তৈরি পোশাক নির্মাতাদের মূল উদ্বেগ হলো উৎপাদনশীলতা, কমপ্লায়েন্স, নিরাপত্তা, মূল্য-সংযুক্তি। এই উদ্বেগগুলো সমাধানে প্রযুক্তি সবসময় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। একটি ভুল ধারণা প্রচলিত আছে যে প্রযুক্তি মানেই কর্মীদের বাদ দিয়ে স্বয়ংক্রিয়ায়ন অথচ বাস্তবতা হলো প্রযুক্তি সরবরাহকারীরা উৎপাদনশীলতা, মান বৃদ্ধিতে এবং উচ্চমানের গার্মেন্ট তৈরিতে সমাধান দিয়ে থাকেন যে কারণে একই পরিশ্রমে বেশি আয় হয়।

মেলার আয়োজক এএসকে ট্রেড এন্ড এক্সিবিশনস প্রা.লি. বাংলাদেশ-এর পরিচালক টিপু সুলতান ভূঁইয়া জানান, এ প্রেক্ষাপটে যেসব উদ্যোক্তা নতুন কারখানা স্থাপনে এবং প্রসারণের চিন্তা করছেন তাদের প্রয়োজনীয় সব ধরনের পণ্য একই ছাদের নিচে পাওয়ার ব্যাপারে গার্মেন্টেক চিটাগং ২০১৮ সাহায্য করবে।

এএসকে ট্রেড এন্ড এক্সিবিশনস প্রা. লি. বাংলাদেশ জনপ্রিয় গার্মেন্টেক বাংলাদেশ ট্রেডশো ঢাকায় আয়োজন করছে গত ১৭ বছর ধরে এবং বিশ্ব প্রযুক্তিকে ব্যবহারকারীদের দোরগোড়ায় নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে তাদের জনপ্রিয় এ ট্রেডশো-এর আঞ্চলিক সংস্করণ আয়োজন করছে চট্টগ্রামে।

টিপু জানান, এ ধরনের ট্রেডশোগুলো কারখানার কারিগরি দলের পাশাপাশি মধ্য ও সিনিয়র পর্যায়ের ব্যবস্থাপকদের বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর সর্বশেষ প্রযুক্তি নিজেদের দোরগোড়ায় দেখার সুযোগ করে দেয় যা না হলে তাদেরকে হয় ঢাকা অথবা দেশের বাইরে যেতে হতো যা সবসময় সহজ নয়। সেই হিসেবে এ প্রদর্শনী একই ছাদের নিচে মেশিনারি, সুতা ও বস্ত্র, গার্মেন্ট এক্সেসরিজ খোঁজার ব্যাপারে একটি বড় সুযোগ দেয়। মেলায় থাকছে দশটি দেশের প্রায় একশটিরও বেশি স্টল।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password