রায়পুর ইউনিয়নকে বাঁচান -জনকল্যাণ সংস্হা

  প্রিন্ট
(সর্বশেষ আপডেট: নভেম্বর ১৬, ২০১৭)

আনোয়ারার উপকূলীয় ইউনিয়ন অরক্ষিত রয়েছে। আজ দুপুরে জোয়ারের পানিতে পুরো ইউনিয়ন তলিয়ে গেছে।ইউনিয়নের সব কয়টি গ্রামে পানি ঢুকেছে।এখনো রাস্তাঘাট পানির নীচে। এই ইউনিয়নের মানুষ সীমাহীন কষ্টে আছে।

আমাদের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এই ইউনিয়নকে রক্ষার জন্য ১০৬কোটি ৩১ লাখ টাকা বরাদ্ধ দেয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।এই টাকার সুষ্ঠু ব্যবহার নিয়ে স্হানীয় এলাকাবাসীর রয়েছে বিস্তর অভিযোগ।ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো সিডিউলের তোয়াক্কা না করেই লুটপাট করছে বলে অভিযোগ করে আসছেন সচেতন জনগণ।ইতিপূর্বে ঠিকাদারের লোকজনেই বস্তা চুরি করতে গিয়ে এলাকবাসীর কাছে ধরা পড়েছে।থানা পুলিশ তাদের বিরুদ্ধে চুরির মামলাও দিয়েছে।কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে পানি উন্নয়ন বোর্ড কী ব্যবস্হা নিয়েছে এলাকাবাসী তা জানে না। ঠিকাদার ও স্হানীয় লোকের মধ্যে বিশ্বাস – অবিশ্বাসের ঢেউ বঙ্গোপসাগরের ঢেউকেও হার মানছে। কতিপয় নেতা, পাতি নেতা ও অজনপ্রিয় প্রতিনিধি ঠিকাদারের পক্ষ হয়ে দালালীতে মেতে উঠেছে।তারা এলাকাবাসীর কাছে চিহ্নিত লোক। এলাকাবাসীর সাফ জবাব সুষ্ঠু কাজ বুঝে নেবার স্হলে তারা ঠিকাদারের স্বার্থ দেখছে।ফলে ইউনিয়নটি রক্ষিত হবার পরিবর্তে অরক্ষিত হয়ে পড়ছে।ইতিপূর্বে প্রিয় রায়পুরের আহবানে অসংখ্য সামাজিক সংগঠন মানববন্ধনও করেছে। হাজার হাজার ছাত্র -ছাত্রী ও স্হানীয় জনতা এই মানববন্ধনে অংশও নিয়েছে।এদিকে আজ রায়পুর ইউনিয়নকে বাঁচানোর দাবীতে ৩নং রায়পুর ইউনিয়ন জনকল্যান সংস্হার সভাপতি এস এম জামাল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক এম.আলী হোসেন এক যুক্ত বিবৃতিতে রায়পুর ইউনিয়নকে বাঁচানোর জন্য আহবান জানিয়েছেন।তারা  সুষ্ঠু বাঁধ নির্মাণ ও ইউনিয়ন রক্ষার দাবীতে এলাকাবাসীর ঐক্য কামনা করেন ও ক্লীন ইমেজের মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের দৃষ্ঠি আকর্ষন করেন।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password