ডিসেম্বর ২, ২০২১ ৩:২৮ অপরাহ্ণ

ইউপি নির্বাচন শেষ ধাপ: দলীয় প্রতীক নিয়ে দলে বিভক্তি শেষ পর্যন্ত শেখ হাসিনা কী করবেন ?

এম. আলী হোসেন
দেশজুড়ে ইউপি নির্বাচন চলছে । একেক এলাকার নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়ন ও জেতার কৌশল আলাদা। কোথাও নির্বাচন ছাড়াও নির্বাচিত হচ্ছেন। আবার কোথাও তুমুল লড়াইয়ে নৌকা ডুবে যাচ্ছে বিজয়ী হচ্ছেন বিদ্রোহীরা। ১ম ও হয় ধাপের নির্বাচনে এসব আলামত ফুঠে উঠেছে। ৩য় ও ৪র্থ ধাপের কৌশল জানা যাবে অচিরেই ।কিন্তু ৫ম ধাপের নির্বাচনের কৌশল নিয়ে খোদ ক্ষমতাসীন দলের উচ্চ পর্যায়ের নেতারাও ভাবছেন ভিন্ন পথ।ইতিমধ্যে শেষ ধাপের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নিয়ে দলে বিভক্তি শুরু হয়েছে। অধিকাংশ ত্যাগী, জনপ্রিয় নেতা ও তৃণমূল কর্মীরা দলীয় প্রতীক তুলে দেবার দাবী করছে। তাদের মতে, দলীয় প্রতীক ছাড়া নির্বাচন হলে জনপ্রিয় সমাজসেবকগণ চেয়ারম্যান হবেন। তখন শেখ হাসিনার জনকল্যাণমূখী কর্মসূচী বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।দলীয় প্রতীক ছাড়া নির্বাচনে দলের ভাবমূতি দেশে ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পাবে। বিষয়টি দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা আমলে নিলে শেষ ধাপের নির্বাচনে দলীয় প্রতীক নাও থাকতে পারে।পূর্ব বাংলার অনুসন্ধানে দেখা গেছে,  ‘ সরকার শেষ ভালো যার সব ভালো তার’ এই নীতিতে আগাচ্ছে। দলীয় গ্রপিং, হাইব্রীড ও অজনপ্রিয়দের ঠেকাতে দলীয় প্রতীক ছাড়া নির্বাচনে পক্ষে অধিকাংশ নেতা কর্মীরা মত দিচ্ছে। টেকসই গণতন্ত্র ও সরকারের নিখুঁত জনপ্রিয়তার জরিপ চালাতেও দলীয় প্রতীক ছাড়া নির্বাচন হওয়া দরকার। দরকার নৌকা প্রতীক বরাদ্ধ বাণিজ্য রোধ করাও।ইউপি ভোটে এ পর্যন্ত ৪৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।  ভোট নিয়ে উত্তেজনা দিন দিন বাড়ছে। সংঘাত, সংঘর্ষ, সহিংসতা চলছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচানা নিয়েও। চলতি সপ্তাহেও নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতায় ১জন নিহত হয়েছেন। ইউপি ভোটের প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে ব্যাপক সংঘর্ষ হওয়ায় আসন্ন অন্যান্য দফার ভোট নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে প্রার্থী ও ভোটারদের মধ্যে। অনেক প্রার্থীকে হুমকি-ধমকিও দেওয়া হচ্ছে। প্রতিনিয়ত ভোট নিয়ে সংঘাত হচ্ছে। তবে ভোটের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখতে নির্বাচন কমিশন নানা হুঁশিয়ারি দিলেও কাজ হচ্ছে না। প্রার্থীরা আচরণবিধি মানছেন না। তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে হানাহানি-মারামারি চলছে। প্রথম ধাপে ৩৬৯ ইউপিতে দুই দফা ভোট হয়েছে গত ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর। ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপের ভোট হয়েছে ৮৩৩ ইউপিতে। তৃতীয় ধাপে ২৮ নভেম্বর ১ হাজার ৭টি এবং চতুর্থ ধাপে ২৩ ডিসেম্বর ৮৪০টি ইউপিতে ভোট হবে। এ ছাড়া পঞ্চম ধাপের ইউপি নির্বাচনের তফসিল নিয়ে সোমবার বৈঠকে বসছে ইসি। এক্ষেত্রে ডিসেম্বরের মধ্যে সব ভোট শেষ হতে পারে। তবে ভোট শেষ করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে আগামী কমিশন বৈঠকে। চমক আসতে পারে এই বৈঠকে।

 

 

 

 

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, ইতিমধ্যে দুই ধাপের ভোট শেষ হয়েছে। আরও দুই ধাপের নির্বাচনী কার্যক্রম চলছে। এরপর একাধিক ধাপে ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, এ বছরের  মধ্যেই মেয়াদ উত্তীর্ণ সব ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা রয়েছে। খুব শিগগিরই পঞ্চম ধাপের ইউপি ভোটের তফসিল ঘোষণা করা হবে। তিনি জানান, ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের ৩৬৯টি এবং ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তৃতীয় ধাপে ২৮ নভেম্বর ১ হাজার ৭টি, চতুর্থ ধাপে ২৩ ডিসেম্বর ৮৪০টি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পঞ্চম ধাপে প্রায় ১ হাজার ইউপির নির্বাচনের তফসিল শিগগিরই ঘোষণা করা হবে।

প্রচারণা চলছে তৃতীয় ধাপের, পদে পদে আচরণবিধি লঙ্ঘন : আগামী ২৮ নভেম্বর হবে তৃতীয় ধাপের ভোট। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গ্রামের হোটেল, রেস্তোরাঁ ও চায়ের দোকানগুলো জমে উঠেছে। প্রতিদিন বিভিন্ন স্থানে চলছে নির্বাচনী সভা। সভার পাশাপাশি প্রার্থীরা ভোটারদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাচ্ছেন। ভোটারদের মন পেতে নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন প্রার্থীরা। রাতদিন তারা নির্বাচনী কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। তবে নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘন করে অনেকেই প্রচারণা চালাচ্ছেন। মিছিল-শোডাউন করছেন। যা আচরণবিধির লঙ্ঘন। বুধবার লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকরা মিছিল করা নিয়ে সংঘর্ষের জড়িয়ে পড়েন। এতে আহত হয়েছেন উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন। বুধবার রাত সড়ে ৮টার দিকে উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আবদুর রব (মোরগ) ও মাইন উদ্দিনের (টিউবওয়েল) সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। স্থানীয় সূত্র জানায়, দুই মেম্বার প্রার্থী নিজ নিজ সমর্থকদের মধ্যে প্রচারণার অংশ হিসেবে মিছিল নিয়ে বের হন। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মিছিল মুখোমুখি অবস্থানে পড়ে। এতে বাকবিতন্ডার মধ্য দিয়ে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।চতুর্থ ধাপের মনোনয়নপত্র দাখিল চলছে : চতুর্থ ধাপে দেশের ৮৪০ ইউপিতে ২৩ ডিসেম্বর ভোট হবে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়া যাবে। মনোনয়নপত্র বাছাই ২৯ নভেম্বর ও প্রত্যাহারের শেষ সময় ৬ ডিসেম্বর এবং চূড়ান্ত প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে ৭ ডিসেম্বর।পঞ্চম ধাপের নির্বাচনী তফশিল ও কৌশলের অপেক্ষায় আছে সচেতন জনগণ।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply