বাংলাদেশ, সোমবার, ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মুফতী হাবীবুর রহমান কাসেমী মামলা করেছেন আল্লামা আহমদ শফীর বিরুদ্ধে আবার প্রতিবাদও করেছেন শিক্ষকেরা

নাজিরহাট বড় মাদরাসার শিক্ষক মুফতী হাবীবুর রহমান কাসেমী বাদী হয়ে হেফাজতে ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এরই প্রেক্ষিতে মামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন হাটহাজারী মাদরসার শিক্ষকবৃন্দ। হাটহাজারী মাদরাসা থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জাননো হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত ৭ জুন আল-জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম এর মহাপরিচালকের কার্যলয়ে নাজিরহাট বড় মাদরসার মুহাতামিমের শূন্য পদ পুরণের লক্ষ্যে মজলিসে শুরার অধিবেশন আহ্বান করা হয়।

মাদরাসার মজলিসে শুরার সদর ও মুতাওয়াল্লি এবং হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচলক আল্লামা শাহ আহমদ শফীর সভাপতিত্বে মজলিসে শুরার এক তৃতীয়াংশ অধিক সদস্যগণের উপস্থিতিতে বৈঠকের কোরাম পূর্ণ হয় এবং উপস্থিত সদস্যগণের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে নাজিরহাট বড় মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা সলিমুল্লাহ সাহেবকে মুহতামিম নিযুক্ত করা হয়।

মজলিসে শুরা কর্তৃক গৃহিত সিদ্ধান্ত প্রত্যাখান করে সম্পূর্ণ নিয়ম বহির্ভুত ও বেআইনিভাবে শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফীকে প্রধান আসামি করে শুরার সদস্যদের বিরুদ্ধে নাজিরহাট বড় মাদরাসার শিক্ষক মুফতী হাবীবুর রহমান কাসেমী বাদী হয়ে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। যা খুবই জঘন্য, ধৃষ্টতাপূর্ণ ও ন্যাক্কারজনক।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গতকাল ৯ আগস্ট রবিবার সকাল ১০ ঘটিকার সময় নাজিরহাট বড় মাদরাসার স্বঘোষিত ভারপ্রাপ্ত পরিচালক ও পদলোভি মুফতী হাবীবুর রহমান কাসেমীর এহেন জগন্য ও ন্যাক্কারজনক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগি পরিচালক মাওলানা শেখ আহমদের সভাপতিত্বে জামিয়ার মহাপরিচালকের কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।এই  সভায় জামিয়ার সকল শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ এই চরম বেয়াদবি ও ধৃষ্টতাপূর্ণ আচরণের তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং অনিতিবিলম্বে  মামলা প্রত্যাহার করার জোর দাবি জানান।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, সভায় উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা শেখ আহমদ, আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী, মাওলানা শোয়াইব, মাওলানা ইয়াহইয়া, মাওলানা কবির আহমদ, মাওলানা মুফতী জসীম , মাওলানা ওমর, মাওলানা মুফতী কিফায়াতুল্লাহ, মাওলানা আহমদ দিদার, মাওলানা ফুরকান আহমদ, মাওলানা আশরাফ আলী নিজামপুরী, মাওলানা আনাস মাদানী , মাওলানা মুহাম্মদ (গহিরা), মাওলানা নুরুল ইসলা , মাওলানা মুহাম্মদ (গড়দুয়ারা), মাওলানা মুফতী আবু সাঈদ , মাওলানা মুফতী রাশেদ, মাওলানা মুফতী ওসমান , মাওলানা শোয়াইব (আলমপুর), মাওলানা তকীউদ্দীন আজিজ, মাওলানা শফিউল আলম, মাস্টার রফিক ও মাওলানা জাহিদুল্লাহ খান সাহেব প্রমুখ।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply