সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১ ৪:১৬ পূর্বাহ্ণ

লামায় আবারো এক নারীকে গলা কেটে হত্যা, ৮বছরে একই গ্রামে খুন

লামা সংবাদদাতা : ২০ অক্টোবর
লামায় ৬ সন্তানের জননীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা। ঘরের মধ্যে ঘুমন্তাবস্থায় গোলাপী বেগম (৪৮) নামের এক মহিলাকে হত্যা করে মুখে বালিশ ঢাকা দিয়ে যায় খুনিরা। শনিবার (১৯ অক্টোবর) রাতে উপজেলার সদর ইউপির চিউনিপাড়া গ্রামে এই লুমহর্ষক ঘটনা ঘটেছে। এর আগেও ওই গ্রামে ২ নারীসহ ৪টি হত্যার ঘটনা ঘটেছে।
জানাগেছে, নিজের কণ্যা আছিয়া বেগম ও নাতনি আমেনা বেগমসহ রাতে একই বিছানায় ঘুময়ি পড়ে গোলাপী বেগম। ভোরে পরিবারের লোজন ঘুম থেকে ডেকে তুলতে গেলে লুমহর্ষক খুনের ঘটনা প্রকাশ পায়। প্রত্যক্ষ্যদর্শী পরিবারের লোকেরা জানায়, খুনিরা হত্যার পর তার মূখমন্ডল বালিশ দিয়ে ডেকে রাখে।
নিহতের স্বামীর নাম মো: শাহজাহান, সে একজন কৃষক। কি কারণে ৬ সন্তানের এই জননীকে হত্যা করা হয়েছে তা, পরিবারের লোকেরা অনুমান করতে পারছেন না। রবিবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থাল পরিদর্শন করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান মর্গে প্রেরন করে।
এই ঘটনায় আতঙ্কগ্রস্থ স্থানীয়রা জানায়, এখানে গত কয়েক বছর ধরে একের পর এক খুনের ঘটনা ঘটে চলছে। এ নিয়ে একইভাবে দু’নারী খুন হয়। খুনের মোটিভ বোঝা না গেলেও স্থানীয়রা জানায়, একটি মহল আতংক সৃষ্টি করে এলাকাটি জনমানবহীন করার উদ্দেশ্যে কিছুদিন পর পর এই ধরণের হত্যা চালাচ্ছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন জানায়, এর আগেও আরেকটি মহিলাকে রাতে ঘরের মধ্যে খুন করার ঘটনায়, যে সব মোটিভ ছিলো; ঠিক একই মোটিভ এই খুনের পেছনেও রয়েছে। তবে মুখ খুলছেন না কেউ।
প্রসঙ্গত: ওই এলাকায় বিগত আড়াই দশক আগে একটি পুলিশ ক্যাম্প ছিলো। ক্যাম্পটি প্রত্যাহারের পর থেকে সেখানে বাসিন্দাদের নিরাপত্তা সংকট দেখা দেয়। চিউনিমুখ নামক ওই পুলিশ ক্যাম্পটি পূন:প্রতিষ্ঠার জন্য স্থানীয়রা দীর্ঘদিন ধরে দাবী করে আসছে।
এ ব্যাপরে হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতী চলছে। পুলিশ আসামী সনাক্তের চেষ্টা চালচ্ছে বলে সূত্রে জানাযায়।।

 

 

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply