বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০১৯ ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

শিক্ষিকাদের সতেজী করণ প্রশিক্ষণে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো’র পরিচালকএসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম

“সরকার সবার জন্য মানসম্মত শিক্ষা বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের উন্নয়নের জন্য এসডিজি-স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে সরকার বদ্ধ পরিকর। স্থায়ীত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় একটি অন্যতম অংশ হলো শিক্ষা, শিক্ষা বাদ দিয়ে এ লক্ষ্য শতভাগ অর্জন সম্ভব নয়। এ জন্য সকলকে একসাথে কাজ করতে হবে। নিজের সন্তানকে আপনারা যেভাবে পড়াশোনা করান, আপনার শিখন কেন্দ্রের প্রতিটি শিশুর প্রতি ঠিক সেভাবে যত্ন নিতে হবে। মানসম্মত শিক্ষায় শতভাগ সফলতা অর্জনের দায়-দায়িত্ব আমাদের সকলের।”

বাংলাদেশ সরকারের উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো এবং যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (জেএসইউএস) কর্তৃক বাস্তবায়িত সেকেন্ড চান্স এডুকেশন-এর আওতাধীন আশার আলো শিশুশিখন কেন্দ্রের শিক্ষিকাদের অংশগ্রহণে দিনব্যাপি মাসিক সতেজীকরণ প্রশিক্ষণ উদ্বোধনকালে উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো’র পরিচালক (পরিকল্পনা, পরীবিক্ষণ, মূল্যায়ন ও এমআইএস) জনাব শামস আল মুজাদ্দিদ প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

রবিবার সকাল ১১টায় নগরীর কোরবানীগঞ্জ আশার আলো শিশু শিখন কেন্দ্রে জেএসইউএস’র নির্বাহী পরিচালক ইয়াসমীন পারভীন-এর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, জনাব দেলোয়ার হোসেন, সহকারী পরিচালক (মনিটরিং), উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা অধিদপ্তর, ঢাকা, জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারি পরিচালক জনাব জুলফিকার আমিন, জেএসইউএস এসসিই প্রকল্পের ফিল্ড কোঅর্ডিনেটর জনাব মুনজিলুর রহমান, ব্র্যাক প্রশিক্ষক মো: শওকত আকবর। আরো উপস্থিত ছিলেন সংস্থার কর্মসূচী ব্যবস্থাপক (এসডিপি) আরিফুর রহমান, প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ ও অংশগ্রহণকারী শিক্ষিকাবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্যে জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা বুরে‌্যার সহকারী পরিচালক জুলফিকার আমীন প্রকল্পের বর্তমান পরিস্থিতি ও চলমান কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, অত্যন্ত সুন্দর ভাবে প্রকল্পের আওতায় স্কুলগুলো চলমান রয়েছে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি, জেএসইউএস’র নির্বাহী পরিচালক ইয়াসমীন পারভীন বলেন, শিশুদের মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করার মূল দায়িত্ব হচ্ছে শিক্ষিকাদের, শহরের কর্মজীবী ও ঝড়ে পড়া শিশুদের স্কুলমুখী করা এবং শিক্ষার অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এ স্কুল পরিচালনা করা হচ্ছে।” শিক্ষিকাদের আরো বেশি দায়িত্বশীল হয়ে পাঠদানের প্রতি তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

এখানে উল্লেখ্য বিগত ২০১৮ সাল থেকে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডে জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো ও ব্র্যাকের সহযোগিতায় সেকেন্ড চান্স এডুকেশন (এসসিই) কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।

আরো খবর

Leave a Reply