জানুয়ারি ২৯, ২০২২ ৪:৫২ পূর্বাহ্ণ

যশোরের নাভারণে কবর থেকে কাফনের কাপড় চুরি

বেনাপোল প্রতিনিধি 

যশোরের নাভারণে কবর থেকে লাশের কাফনের কাপড় চুরির সাত দিন পর আবার একই কবরের পাশে ওই চোরাই কাফনের কাপড় রেখে দেওয়ার ঘটনার সংবাদ পাওয়া গেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, ঝিকরগাছা উপজেলার নাভারণ ইউনিয়নের দেউলি গ্রামের মৃত সামছুর রহমানের স্ত্রী মেনু খাতুন (৭০) ৭ জানুয়ারী বার্ধক্য জনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর পর মেনু খাতুনকে নিজ বাড়ির পাশে সমাহিত করা হয়। সমাহিত করার তেত্রিশ দিন পর দেখা গেল রাতের অন্ধকারে কে বা কারা মেনু খাতুনের লাশের কাফনের কাপড়ের একাংশ নিয়ে গেছে এবং লাশের গলা থেকে নীচের অংশ মাটির নীচে কবরের মধ্যে ঢুকানো , আর গলা থেকে মাথা পর্যন্ত মাটি উপরে উঠানো অবস্থায় আছে। পরে মৃতের স্বজনরা লাশটিকে আবার যথানিয়মে মাটির নীচে ঢুকায়ে দেয়। লাশের কাফনের কাপড়  চুরির এক সপ্তাহ পরে শুক্রবার সকালে বাড়ির লোকজন গলিত লাশের দূর্গন্ধ পায়। উৎসুক স্বজনরা কবরের কাছে যেয়ে দেখলো কবরের পাশে ধানের বিচালীর গাদার উপরে চুরি হওয়া দূর্গন্ধযুক্ত সেই কাফনের কাপড় কে বা কারা রেখে দিয়েছে। বিষয়টি এলাকার মানুষের মুখে মুখে চাউর হচ্ছে।

মৃত মেনু খাতুনের বাড়ির পাশের সেলিম জানান, মেনু খাতুনের মৃত্যুর পর মুসলিম শরীয়া মতে সমাহিত করার তেত্রিশ দিন পর লাশের কাফনের কাপড় চুরি হয়ে যায়। কাফনের কাপড় চুরি হওয়ার এক সপ্তাহ পরে কে বা কারা কবরের পাশে ধানের বিচালীর গাদার উপরে চুরি হওয়া দূর্গন্ধযুক্ত সেই কাফনের কাপড় রেখে দিয়েছে।

নাভারণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাজান আলী মেনু খাতুনের কাফনের কাপড় চুরি হওয়ার পরে আবার ফেরৎ দেওয়ার ঘটণার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, দেউলি গ্রামের মৃত সামছুর রহমানের স্ত্রী মেনু খাতুনকে সমাহিত করার তেত্রিশ দিন পরে রাতে কে বা কারা কাফনের কাপড় চুরি করলো  এবং ফেরৎ দিল তা বুঝে উঠতে পারছিনা।
ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, এমন ধরণের ঘটণার কথা আমাকে কেউ জানায়নি।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply