বাংলাদেশ, শনিবার, ৩১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিলেট ও খাগড়াছড়িতে গণধর্ষণের প্রতিবাদে চট্টগ্রামে ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশী বাঁধা

আওয়ামী লীগের প্রত্যক্ষ মদদে ধর্ষনের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে বাংলাদেশ

একদলীয় স্বৈরতন্ত্র, বিচারহীনতার সংস্কৃতি আইনের শাসনের অভাব ও অপরাধীদের রাজনৈতিকভাবে বর্তমান সরকার কর্তৃক আশ্রয় প্রশ্রয়ের কারণে বর্তমান বাংলাদেশ ধর্ষণের স্বর্গরাজ্যে রূপান্তরিত হয়েছে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বলে উল্লেখ করে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ বলেন, আওয়ামী অপশাসনের কারণে দেশে ধর্ষণ, রাহাজানী, লুটতারাজ, চাঁদাবাজী, ব্যাংক ডাকাতি সহ নানা ধরণের অপকর্মের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। যার সাথে সরকারি দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীদের সংশ্লিষ্টতা থাকার কারণে প্রশাসন নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের যথাযথ বিচার নিশ্চিত করতে বাঁধাগ্রস্থ হয়। গণমাধ্যমে প্রতিনিয়তই ছাত্রলীগ যুবলীগ সহ আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের কুকর্মের কাহিনী আমরা শুধু দেখি আর শুনি কিন্তু তাদের বিচার হতে আর দেখি না, যা একটি সভ্য সমাজের কখনই কাম্য নই। সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণের কারণেই দেশের মানুষ আজ প্রতিবাদহীন হয়ে যাচ্ছে, মানুষ আজ অত্যাচারীর অত্যাচারে নিস্প্রেষিত হয়েও ভয়ে মুখ খোলার সাহস পায় না, এ কেমন গণতন্ত্র ! এ কেমন বাকস্বাধীনতা! এখানে মানুষের প্রতি সরকারের নূন্যতম সম্মানবোধ নেই, এখানে আছে শুধু জোর পূর্বক মানুষকে জিম্মি করে ক্ষমতা টিকিয়ে রাখার যতসব অবৈধ পাঁয়তারা। প্রয়োজনে দেশের স্বার্থ বিজর্সন দিয়ে হলেও ক্ষমতার মসনদে বসে থাকার জন্য তারা সর্বদা প্রস্তুত। এই জনবিরোধী ও দেশবিরোধী আওয়ামী সরকারের প্রতি মানুষের তীব্র ঘৃণা ও ক্ষোভ জন্মেছে। এদেশের নারীরা আজ মর্যাদা ও সম্ভ্রম হানির আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। নারীরা আজ কোথাও নিরাপদ নই। সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে স্বামীর সামনে স্ত্রীকে বেঁধে ছাত্রলীগ কর্তৃক গণধর্ষণ ও খাগড়াছড়িতে একজন প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ এই কথারই সাক্ষ্য দেয় যে, বাংলাদেশ আজ একটি বিশৃঙ্খল ও ধীরে ধীরে অকার্যকর রাষ্ট্রের দিকে ধাবিত হচ্ছে। এটি আমাদের জন্য মোটেও ভাল কোন সংবাদ নই। এখনও সময় আছে দেশকে এই চরম অরাজক অবস্থা থেকে দ্রুত মুক্ত করতে হবে। তাই বাংলাদেশের সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে চরম ফ্যাসিবাদী এই আওয়ামী সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র গণআন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। অন্যথায় আওয়ামী লীগের এই রোষানাল থেকে আমরা কেউই রেহাই পাব না। অবিলম্বে সিলেটের গণধর্ষণকারী ছাত্রলীগ নামক নরপশুদের এবং খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী নারীর ধর্ষকদের গ্রেপ্তার করে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল মা-বোনদের ইজ্জত রক্ষার্থে রাজপথে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।

আজ ২৮ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪ ঘটিকায় নগরীর নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় প্রাঙ্গণে সিলেটের এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে স্বামীর সামনে স্ত্রীকে ছাত্রলীগ কর্তৃক গণধর্ষণ ও খাগড়াছড়িতে প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্বক সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদল সভাপতি গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহর সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আলী মর্তুজা খানের সঞ্চালনায় উক্ত সমাবেশে চট্টগ্রাম মহানগরীর আওতাধীন সকল থানা, কলেজ, ওয়ার্ড এর নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। উক্ত মিছিলটি নাসিমনভবন দলীয় কার্যালয় থেকে বের হওয়ার সময় পুলিশী বাঁধার সম্মুখীন হয়। নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে রাস্তায় নামতে চাইলে পুলিশ তাদেরকে পথরোধ করে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বের হতে দেয়নি। মহানগর ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ পুলিশের ন্যাক্কারজনক এই আচরণের তীব্র প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানান।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply