বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২৫শে জুন, ২০১৯ ইং, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের জন্য সিলেট নগরীতে এবার ২ টাকায় ঈদের খুশি

সিলেট নগরীতে থাকা সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে পবিত্র ঈদুল ফিতরে ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে নেয়া হয়েছে ব্যাতিক্রমধর্মী উদ্যোগ ‘দুই টাকায় ঈদের খুশী’।
‘দি হেলপিং উইং’ নামক সিলেট নগরীর একটি সামাজিক সংস্থা হতদরিদ্র সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে ঈদ আনন্দ ছড়িয়ে দিতে আগামী ১২ জুন আয়োজন করছে ‘দুই টাকায় ঈদের খুশি’ নামক নানা অনুষ্ঠান মালা।
আয়োজন সংস্থা সুত্র জানায়, মাত্র দুই টাকার বিনিময়ে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসা প্রতিটি সুবিধা বঞ্চিত শিশুকে দেয়া হবে তার পছন্দমত একটি করে নতুন জামা, একটি করে নতুন খেলনা, সকালের নাস্তা, দুপুরের খাবার, বিকেলের নাস্তা, সিলেটের যে কোন একটি পার্কে চারচাকার গাড়ি যোগে নিয়ে যাওয়া হবে বেড়ানোর জন্য এমনকি সংস্থার স্বেচ্ছাসেবী সদস্যরা ওইসব শিশুদের পছন্দ মত একক বা গ্রুপ ছবিও তুলে দিবেন।
এ সংস্থাটি ঈদুল ফিতরে সিলেট নগরীর পাঁচটি পয়েন্টে সমাজের সুবিধা বঞ্চিত লোকজনের মধ্যে ২ টাকায় দশ পদের ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছে।
গত ১৩ মে সিলেট নগরীর চৌহাট্টায় ‘হেল্পিং উইং’’র ইফতার বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এরপর নগরীর রিকাবীবাজার, সুবিধবাজার, শাহী ইদগাহ ও নয়াসড়কে ২টাকায় আরো চারদিন ইফতার বিতরণ করা হয়।’
টানা পাঁচ দিনের এমন আয়োজনে সিলেট সিটি মেয়র ছাড়াও যুক্ত হয়েছিলেন, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আসাদ উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, সিলেট চেম্বার্স অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাটির সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ,মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট রাজ উদ্দিন। ১৩ মে থেকে ১৭ মে প্রতিদিন সংস্থার শতাধিক স্বেচ্ছাসেবী সদস্য লোকজনের হাতে তুলে দিয়েছেন ইফতারীর প্যাকেট ও খাবার পানি।
সংস্থাটি আবারো ২৬ মে নগরীর শিবগঞ্জ পয়েন্টে ইফতারী বিতরণ করার উদ্যোগে নিয়েছে।
দি হেলপিং উইং এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক গালিব হোসেন চৌধুরী জানান, বাজারে জামা কাপড়ের যে চড়া মুল্য তাতে অধিকাংশ সুবিধাবঞ্চিত শিশু বা তার পরিবারের পক্ষ্যে ঈদে নতুন জামা কাপড় কিনে দেয়া কিংবা শিশুর হাতে একটি খেলনা তুলে দেয়া অনেক সময় দরিদ্রতার কারনে হয়ে উঠেনা ,তাই আমরা বড়পরিসরে হতদরিদ্র সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের অংশ গ্রহনে তাদের মাঝে ঈদের খুশি ছড়িয়ে দিতে এ আয়োজন করতে চাই।’ এজন্য ঈদুল ফিতরের দিন তা সম্ভব হচ্ছে না। তাই ঈদুল ফিতরের পরপরই তাদের নিয়ে ঘুরতে যাওয়া হবে সিলেটের যে কোনো একটি পার্কে। মাত্র দুই টাকার বিনিময়ে সুবিধাবঞ্চিত শিশুকে কিনে দেওয়া হবে নতুন জামা, নতুন খেলনা।
তিনি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের পাশে দাড়াতে ও এ আয়োজনকে সফল করতে আগামী ১২ জুনের মধ্যে প্রবাসী, সমাজের দানশীল, বিক্তবান সহ সিলেটের সর্বস্তরের মানুষকে নতুন জামা কাপড়, খেলনা বা অনুদান দিয়ে সহযোগিতার আহবান জানিয়েছেন।

আরো খবর

Leave a Reply