বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২৩শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৮ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ইসলামী আন্দোলনের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত

 

বাঁশখালী প্রতিনিধি :

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার উদ্যোগে আলেম ওলামা, রাজনীতিবীদ, পেশাজীবি, শিক্ষাবিদ ও সাংবাদিকদের সম্মানে এক ইফতার মাহফিল আজ (২০ মে) সোমবার বিকেলে বাঁশখালী পৌর সদরের জলদী কুটুমবাড়ীতে অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামী আন্দোলনের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি সাংবাদিক শফকত হোসাইন চাটগামীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন, ইসলামী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম মহানগর সভাপতি আলহাজ্ব জান্নাতুল ইসলাম।

বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক ড. বেলাল নুর আজিজী, জামেয়া দারুল মা আরিফ আল ইসলামিয়ার মুহাদ্দিস আল্লামা হাফেজ ফরিদ আহমদ আনসারী, মুহাদ্দিস আল্লামা মুজিবুর রহমান, ইসলামী আন্দোলন নেতা মাওলানা নুরুল আলম তালুকদার, জেলা সেক্রেটারী মাওলানা জসিম উদ্দীন, প্রচার সম্পাদক মাওলানা গিয়াস উদ্দীন আল মাহমুদ, সহকারী প্রচার সম্পাদক মাওলানা আতাউল্লাহ ইসলামাবাদী, মাওলানা আলমগীর ইসলামাবাদী, মাওলানা মুফতি নুরুল আমিন, আল ফারুক মাদরাসার সহকারী পরিচালক মাওলানা মোহাম্মদ নছিম, বাঁশখালী উপজেলা সেক্রেটারী মাওলানা জসিম উদ্দীন মিসবাহ, জেলা সদস্য মাওলানা নুরুল আলম ফারুকী, পৌরসভা সেক্রেটারী মাওলানা মোবারক হোসাইন আসিফ, জালিয়াঘাটা তজবীদুল কোরআন মাদরাসার পরিচালক মাওলানা মোজাম্মিলুল হক, মারকাজুল কোরআন মাদরাসার পরিচালক মাওলানা মাহমুদুল ইসলাম, বাহারছড়া মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা ওসমান গণি, মাওলানা হাছান মুরাদ, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স বাঁশখালী শাখা ইনচার্জ মাওলানা জাফর ইকবাল, মাওলানা আজিজুল হাছান, যুব নেতা মাস্টার নুর আহমদ ছিদ্দিকী, আমান উল্লাহ হাছান, মাওলানা আরশদ ইলিয়াছ, মাওলানা ইদ্রিছ, ছাত্রনেতা আবদুল্লাহ মেশকাত, জাহাঙ্গীর আলম, আব্বাস উদ্দীন প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলহাজ্ব জান্নাতুল ইসলাম বলেন, “আমাদের দেশ শতকরা ৯০ শতাংশ মুসলমানের দেশ হলেও এই দেশে আজ মুসলমানরা নির্যাতিত। ৭/৮ শতাংশ মানুষের কাছে আমরা আজ জিম্মি। এর একমাত্র কারণ হচ্ছে আমাদের মধ্যে ঐক্য নেই। আমরা যে যে প্লাটফর্মে থাকি না কেন; আসুন আমরা ইসলামী হুকুমত কায়েম করতে ঐক্যবদ্ধ হই।”

তিনি আরো বলেন, একসময় আমরা বড় বড় আলেমদের মুখে শুনতাম, আলেম হলে ফরিদ উদ্দীন মাসউদের মতো হও। কিন্তু অত্যন্ত দুর্ভাগ্য ও পরিতাপের বিষয় হচ্ছে, এই মাপের ব্যক্তিটিও আজ ক্ষমতার লোভে আল্লাহর রাসুলের সুন্নতের বিরুদ্ধে কটাক্ষকারীদের সহযোগীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন। যার কারণে সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়া সত্ত্বেও আজকে আমাদের এই অবস্থা। আমাদেরকে এসবের বিরুদ্ধে জেগে উঠতে হবে। অন্যায়, দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। পীর সাহেব চরমোনাই এমন একজন ব্যক্তি যিনি দুনিয়ার কোন ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করেন না, এদেশের মানুষের মুক্তির জন্য আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভই পীর সাহেব চরমোনাই’র রাজনীতির উদ্দেশ্য। কাজেই আসুন, আমরা পীর সাহেব চরমোনাই’র নেতৃত্বে এই দেশে আল্লাহ রাজ কায়েমে ঝাঁপিয়ে পড়ি।” ইফতারের পূর্বে মোনাজাত পরিচালনা করেন- জামেয়া দারুল মা’আরিফ আল ইসলামিয়া মাদরাসার সিনিয়র মুহাদ্দিস আল্লামা মুজিবুর রহমান।

আরো খবর

Leave a Reply