বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০১৯ ইং, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

খাগড়াছড়িতে ত্রিপুরা কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা আটক ৩

 

শংকর চৌধুরী,খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়িতে এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

নিহতের নাম ধনীতা ত্রিপুরা (১৭), সে স্থানীয় নল মোহন ও শ্বরলেখা ত্রিপুরার মেয়ে। সোমবার ১৩ মে রাতে জেলা সদরের ভাইবোনছড়া বড়পাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার ১৪ মে দুপুরে তার ঘর থেকে মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে সদর থানা পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন, ভাইবোনছড়া ইউনিয়নের ভেজাচন্দ্র পাড়ার মৃত দশিন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে রুমেল ত্রিপুরা (২২), মৃত তনিন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে ত্রিরণ ত্রিপুরা (২০) ও একই গ্রামের মৃত যতিন্দ্র ত্রিপুরার ছেলে কম্বল ত্রিপুরা (১৯)।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহদাত হোসেন টিটো জানান, সদর থানাধীন ভাইবোনছড়ার বড়পাড়া এলাকায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার খবর পেয়ে
ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করি। স্থানীয়দের সহযোগীতায় ঘটনার সাথে জরিত তিনজনকে আটক করতে স্বক্ষম হয় পুলিশ।

সদর থানার ওসি বলেন, নিহতের স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা গেছে বেশ কিছুদিন ধরে ধনীতা ত্রিপুরাকে বিয়ে দেয়ার জন্য তার মা-বাবাকে হুমকি দেয়া হচ্ছিল। মেয়েকে কম্বল ত্রিপুরার সাথে বিয়ে দিতে হবে, না হলে তাকে মেরে ফেলা হবে। গত সোমবার ১৩ মে অসুস্থতার কারণে মা শ্বরলেখা ত্রিপুরা দীঘিনালা উপজেলায় বড় মেয়ের বাড়িত বেড়াতে গেলে রাতের বেলায় আটককৃত কম্বল ত্রিপুরা, রুমেল ত্রিপুরা ও ত্রিরণ ত্রিপুরা তাদের বাড়িতে গিয়ে মেয়ের সামনেই মদ্যপবস্থায় তাকে ফোন দিয়ে মেয়েকে বিয়ে দিবে কিনা না জিজ্ঞাসা করে এবং মেয়েকে তুলে নিয়ে যাচ্ছে বলে। কথাকাটাকাটির এক পর্যায় ফোন কেটে দেয় তারা। পরের দিন সকালে মেয়েকে মেরে ফেলা হয়েছে শুনে বাড়িতে এসে মেয়ের লাশ দেখতে পেয়ে স্বজনদের দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

কিভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তবে প্রাথমিক ভাবে এতেই প্রমাণিত হয় এরাই রাতে মদ্যপবস্থায় ধর্ষণের পর তাকে হত্যা করেছে। ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলেও জানান তিনি।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, বৃদ্ধ কৃষক বাবা আর মা অসুস্থ হয়ে দির্ঘদিন বড়বোনের বাড়িতে আসা যাওয়াতে থাকে। এক ভাই ও চার বোনের মধ্যে নিহত ধনীতা ত্রিপুরা তৃতীয়। আর বড় দুই বোনের বিয়ে হয়েছে। পাশের বাড়িতে বড়ভাই পরিবার নিয়ে থাকলেও তারই পাশের বাড়িতে রাতের বেলায় ঘরে একা থাকার কারনে ধর্ষণের পর হত্যা শিকার হতে হল ধনীতা ত্রিপুরাকে। হত্যাকারিদের ফাঁশির দাবি জানিয়ে তার স্বজন ও এলাকাবাসী।

আরো খবর

Leave a Reply