বাংলাদেশ, শনিবার, ১৯শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

হাসিনা মহিউদ্দিনের নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জ পাল্টা কমিটি ঘোষণা

           চট্টগ্রামে  নগর মহিলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের একদিন পর নির্বাচিত সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিনের নেতৃত্ব চ্যালেঞ্জ করে পাল্টা কমিটি ঘোষণা করেছেন নগর মহিলা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী অংশের নেত্রীরা। পাল্টা কমিটিতে নমিতা আইচকে সভাপতি এবং সাবেক কাউন্সিলর রেখা আলম চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়েছে।

  পাল্টা কমিটি ঘোষণার আগে তপতী সেনগুপ্তা সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, উনি কে? হু ইজ শী? উনার বাসা কোথায়? উনার বাড়ি কোথায়? উনি কোত্থেকে এসেছেন?

সাংবাদিকের সামনে তপতী সেনের এমন বক্তব্যে সংবাদ সম্মেলনস্থল জুড়ে হাস্যরসের সৃষ্টি হয়। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে আসা মহিলা আওয়ামীলীগের নেত্রীরা অনেকে হাততালি দিয়ে উৎসাহ দেন। তপতী সেন গুপ্তা বলেন, মহিউদ্দিন চৌধুরী, যাকে বলা হত চট্টগ্রামের টাইগার, যার জন্য আমরা অনেক পরিশ্রম করেছি, আজ তার পরিবারের জন্য আমাদের উপর হাত তোলা হয়েছে। মহিউদ্দিন ভাই দুর্বল হয়ে পড়েছেন, যে কোন সময় চলে যাবেন, তাই একজনকে চট্টগ্রামে রেখে যেতে চাচ্ছেন। এজন্য কি জোর করে তার স্ত্রীকে সভাপতি করা হয়েছে?

তপসী সেন গুপ্তা বলেন, হঠা?ৎ করে ঘোষণা করা হল মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। আমরা এই সম্মেলন মানি না। আমি সাধারণ সম্পাদক। অথচ আমাকে সম্মেলনে যেতে দেয়া হল না। আমার কর্মীদেরকে যেতে দেয়া হলোন। আমাকে ছাড়াই সম্মেলন হয়ে গেল। এই কমিটি মানব কিভাবে?

তপতী সেনকে কাজে পাওয়া যায় না, হাসিনা মহিউদ্দিনের এমন অভিযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আমি দলের দুর্দিনে ছিলাম, এখনো আছি। কখনো দল ছাড়িনি। সবসময় ছিলাম। মহিউদ্দিন ভাইকে মেয়র করার জন্য আমি অনেক পরিশ্রম করেছি। রাত ২টা বেজে যেত, আমরা মহিউদ্দিন ভাইয়ের বাসা থেকে বেরুতে চাইলে বলত, আরেকটু বসেন। এভাবে কাজ করে বেরিয়ে গাড়িও পেতাম না। অনেক কষ্ট করেছি। এখন বলা হচ্ছে আমি নাকি ৮ বছর ছিলাম না। ৮ বছর আমি কোথায় ছিলাম? বাবা মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছে, স্বামী আহত হয়েছে। তখন আমি দেশ ছেড়ে যাইনি, এখন কেন ইন্ডিয়ায় যাব?’ একথা বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন তপতী সেনগুপ্তা।

সংবাদ সম্মেলনে নমিতা আইচ বলেন, গত মঙ্গলবার যে কমিটি গঠন হয়েছে, কি কমিটি করেছে আমরা জানি না। আমাদের সাথে কোন কথা তারা বলেনি। এই কমিটি আমরা মানি না। আমরা কমিটির কিছু নাম ঘোষণা করছি। সবাই বসে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করব। তারপর সেটা ঢাকায় কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়ে দেব। আশা করি তারা সমন্বয় করে একটি কমিটি দেবেন।

দুই দশক পর গত মঙ্গলবার নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হন হাসিনা মহিউদ্দিন। সাধারণ সম্পাদক হন আনজুমান আরা চৌধুরী আনজি। এই সম্মেলনে আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা ১২ সদস্যের আংশিক কমিটি অনুমোদনের ঘোষণাও দেন। আংশিক কমিটিতে সহ সভাপতি হিসেবে তপতী সেনগুপ্তা এবং রেখা আলম চৌধুরীকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এই কমিটির পদ প্রত্যাখান করেন কিনা জানতে চাইলে তপতী সেনগুপ্তা বলেন, সেই সম্মেলনে আমাকে যদি সভানেত্রীও করা হত আমি মানতাম না। আমার কর্মীদের ছাড়া আমি কোন পদে থাকব না।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন মহিলা লীগের প্রবীণ নেত্রী অঞ্জলী কুন্ডু, চসিকের প্যানেল মেয়র জোবাইরা নার্গিস খান, কাউন্সিলর আনজুমান আরা বেগম, মিলি চৌধুরী।

 

আরো খবর

Leave a Reply