বাংলাদেশ, বুধবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।

মুস্তাক মুহাম্মদ এর ৩টি মার্চের কবিতা

সেই বৃক্ষই বাংলাদেশ
১৯৭১, ২৫ মার্চ, মধ্য রাত
সাজারু – ট্যাঙ্ক সারি সারি সৈন্যদের গাড়ি
ছেয়ে গেছে ঢাকার রাজপথ, থমথমে চারপাশ।
হন্যে হয়েছে পাক হানাদার –
খুঁজছে স্বাধীন বাংলার মাথাদের।
হানাদারেরা ডাকাতের মত তালাবদ্ধ গেট ভেঙে
রক্তের সাগর ভাসিয়ে দিল!
কিন্তু শরীর নশ্বর হলেও স্বাধীনতা অবিনশ্বর
স্বাধীন বাংলার সেই বীজ ঠিকই ন’ মাসে
পরিপূর্ণ হয়ে অঙ্কুরোদগম হয়েছিলো।
সেই বৃক্ষই বাংলাদেশ

লাল সবুজের পতাকা উড়বে
মার্চের শোককে শক্তিতে পরিণত করে
সংগ্রামী বাঙালি স্বাধীনতা আনলো;
ন’মাসে ত্রিশ লক্ষ জীবন ,
দুই লক্ষ্য মান – বোনদের সম্ব্রাম ও
সাড়ে সাত কোটি বাঙালির আত্নত্যাগে-
আমরা একটি দেশ- বাংলাদেশ পেলাম।
দেশ এখন এগিয়েছে কিন্তু!
নবপ্রজন্ম চেতনায় কারা বিষবৃক্ষ রোপন করছে-
গেড়ে বসার আগেই মূলোৎপাটন করতে হবে তাদের।
দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাবে দেশ
লাল সবুজের পতাকা উড়বে – গৌরবের সাথে।

মাথা উঁচু করে বাঁচি
জিসি দেব, আলতাফ মাহমুদ, আনোয়ার পাশা
নক্ষত্রসম নাম, মা তোমার সন্তান।
মা তোমাকে শুধু শৃঙ্খল মুক্ত দেখতে
বর্বর হানাদারদের হাতে জীবন গেলো তাদের।
তবু তোমার সন্তানেরা পিছপা হয় নি;
সূর্য যেমন রাত শেষে আবার ওঠে তেমনি
মতিউর , রুহুল আমিন, মোস্তফা কামাল, রব,
হামিদুর, নূর মোহাম্মদ, জাহাঙ্গীররা জেগে উঠলো্।
মা তোমর সন্তানেরা এভাবে যুগে যুগে জেগে উঠবে।
মা, তোমর সন্তান
হারকিউলিস , মুসোলিনি, নেপোলিয়ান,
হেকটরের চেয়ে কম কর্মবীর নয়।
মা, আজ তুমি মুক্ত –
তোমার লাল সবুজের আঁচলের নিচে শান্তিতে আমরা
মাথা উঁচু করে বাঁচি।

আরো খবর

Leave a Reply