ডিজিটাল পাবলিসিটি কাউন্সিলের মতবিনিময়

  প্রিন্ট
(সর্বশেষ আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৮)

 

বাংলাদেশ এখন আর দরিদ্র, অনুন্নত ও পিছিয়ে পড়া রাষ্ট্রের মত নয়। বাংলাদেশ এখন সুখী, সমৃদ্ধ ও উন্নয়নশীল দেশ। বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার পরবর্তী দেশকে একটি সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ গড়তে নানা কর্মসূচি নিয়ে দেশকে এগিয়ে নিলেও স্বাধীনতাবিরোধী চক্র জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করে দেশের উন্নয়নের চাঁকা বন্ধ করে দেয়। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা দ্বিতীয়বারের মত ২০০৮ সালে ক্ষমতায় এসে পিছিয়ে পড়া বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে পিতার অসমাপ্ত কাজে হাত দেন এবং উন্নয়নের গতি সূচনা করেন। আজ শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশের কাতারে। বাংলাদেশ মানেই বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনা একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। তাই বঙ্গবন্ধু মানেই সোনার বাংলাদেশ আর শেখ হাসিনা মানেই ডিজিটাল বাংলাদেশ। ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ক্লাবে অনুষ্ঠিত ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিলের মতবিনিময় সভায় বক্তারা উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

জাতীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ডিজিটাল বাংলাদেশ পাবলিসিটি কাউন্সিলের ৯ বছর পূর্তি উপলক্ষে গত ২৮ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৭ টায় ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ক্যাম্পাস্থ ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় ক্লাবের কৃষ্ণচূড়া হলে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও ডিজিটাল বাংলাদেশের একমাত্র প্রচারক স.ম. জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিথি আলোচক ছিলেন, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের মাইক্রো বায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক, স্টামফোর্ট ইউনিভার্সিটির প্রাক্তণ উপচার্য প্রফেসর ড. এম মজিবুর রহমান, ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের পালি ও সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান ও বিভাগীয় প্রধান ড. বিমান চন্দ্র বড়–য়া, উত্তরা বিশ^বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ মিজবাহ উদ্দিন। সভায় বক্তারা আরো বলেন, বিশ্ব আজ উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে। পৃথিবীর যে কয়টি দেশ আজ উন্নয়নের শিকড়ে পৌঁছেছে তাদের সবকটিই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যবহারের ফলে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের অগ্রগতির কথা চিন্তা করে ২০০৮ সালের নির্বাচনী রোড ম্যাপ তথা ভিশন ও মিশন ঘোষনা করেন ডিজিটাল বাংলাদেশ ২০২১। ক্ষমতায় এসে বর্তমান সরকার ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে কাজ শুরু করে। আজ ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়িত হওয়ার ফলে সকল নাগরিক তথ্য প্রযুক্তির সেবা ও সুযোগ-সুবিধা পাচ্ছে। ঘরে বসেই দেশের সকল মানুষ প্রযুক্তির সেবা গ্রহণ করছে। বলতে গেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়িত হওয়ার ফলে আজ হাতের নাগালেই প্রযুক্তির ছোঁয়া। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রফেসর ড. নূরুল ইসলাম, প্রফেসর শ্রীমতি শান্তা বিশ^াস, ড. সাধন চন্দ্র ধর, অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম, অধ্যাপক সুমন বিশ^াস, অধ্যাপক সুপ্তি কণা দাশ, লায়লা আরজুমান বানু, ডা: মোঃ জামাল উদ্দিন, প্রফেসর ডা: সুভাষ চৌধুরী, প্রফেসর মাইকেল দে, ডা: অভিজিত দে রিপন, মোঃ জসীম উদ্দিন চৌধুরী, প্রকৌশলী সঞ্চয় কুমার দাশ, প্রকৌশলী টি কে সিকদার, প্রকৌশলী নিক্সন চৌধুরী, ব্যাংকার টিটু কুমার দাশ, শিক্ষিকা সাথী দাশ, কুতুব উদ্দিন রাজু, কবি আসিফ ইকবাল, নূর উদ্দিন আহমেদ রনি, হাবিবুর রহমান, শেখ আব্দুল্লাহ শেকাব, মোস্তাফিজুর রহমান মানিক, এস এম লিয়াকত হোসেন প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা স.ম. জিয়াউর রহমান মাসিক মৌচাক ও সিটিজি পোস্ট ডটকমের মুদ্রণ সংখ্যা অতিথিদের হাতে তুলে দেন।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password