বাংলাদেশ, রবিবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।

আঞ্চলিক ইতিহাস প্রকাশের মাধ্যমে জাতীয় ইতিহাস সমৃদ্ধ হবে-ড. মোহাম্মদ আমীন

 

প্রখ্যাত ভাষাবিজ্ঞানী, ইতিহাসবেত্তা, শুদ্ধ বানান চর্চা (শুবাচ) এর কেন্দ্রীয় সভাপতি, বাংলাদেশ সরকারের যুগ্মসচিব ড. মোহাম্মদ আমীন বলেছেন, আঞ্চলিক ইতিহাস প্রকাশের মাধ্যমে জাতীয় ইতিহাস সমৃদ্ধ হবে। আঞ্চলিক ইতিহাসগুলো জাতির জন্য গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ। বাংলাদেশের জেলা ও উপজেলা ভিত্তিক ইতিহাস গুলো আমাদের জন্য ঐতিহাসিক উপাদান। বর্তমান প্রজন্মকে দেশপ্রেম ও ইতিহাস সচেতনায় গড়ে তুলতে প্রাচীন ইতিহাসের সাথে পরিচয় করে গড়ে তুলতে হবে। তিনি চন্দনাইশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য গ্রন্থ প্রণয়নের জন্য ইতিহাস গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, চন্দনাইশের প্রাচীন ইতিহাস গুলো বর্তমান প্রজন্ম সোহেল ফখরুদ-দীনের বইয়ের মাধ্যমে সহজে জানতে পারবে। চন্দনাইশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য ও সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন এই বইয়ের কারণে ইতিহাসে অমর হয়ে থাকবে। শত ও হাজার বছর পর এই বই এই অঞ্চলের মানুষকে অতীতের সন্ধান দিবে। ১১ অক্টোবর রাতে নগরীর জিইসি’র মোডস্থ একটি রেস্টুরেন্টে চন্দনাইশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে ড. মোহাম্মদ আমীন উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। শুবাচ চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিটির সভাপতি ও চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীনের সভাপতিত্বে এই সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভাষা বিজ্ঞানী, ইতিহাসবেত্তা, বাংলাদেশ সরকারের যুগ্মসচিব ড. মোহাম্মদ আমীন। বক্তব্য রাখেন প্রবীন সাংবাদিক অমর কান্তি দত্ত, ইতিহাস গবেষক অধ্যক্ষ ইউনুচ কুতুবী, কবি-সাংবাদিক আসিফ ইকবাল, শিক্ষক ওয়াহেদুল ইসলাম, সাংবাদিক এ.কে.এম. আবু ইউসুফ, মোহাম্মদ মহিউদ্দিন চৌধুরী, মোহাম্মদ আবদুর রহিম, নয়ন বড়ুয়া, অধ্যাপক দিদারুল আলম, হাফেজ আহমেদ, মোঃ নুরুল আলম, ঝন্টু বড়ুয়া প্রমূখ। সভার শুরুতে চন্দনাইশে জন্ম গ্রহণকৃত ভারতীয় উপমহাদেশের বিখ্যাত মনীষীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধানিবেদনপূর্বক ১ মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয় এবং সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন রচিত চন্দনাইশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য গ্রন্থের মোড়ক উম্মোচন করা হয়। চট্টগ্রামের সাজিদ আলী প্রকাশন থেকে প্রকাশিত চন্দনাইশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য গ্রন্থটি মূল্য রাখা হয়েছে দুইশত চল্লিশ টাকা।

এই বিভাগের আরো খবর

আরো খবর

Leave a Reply