বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মুক্তিকামী মানুষের অধিকার আদায়ে সব সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঝাঁপিয়ে পড়বে :নুর

বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর বলেছেন, ‘যেকোনো প্রয়োজনে এ দেশের মুক্তিকামী মানুষের অধিকার আদায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বারবার ঝাঁপিয়ে পড়বে। তাদের কেউ শৃঙ্খলবদ্ধ করে রাখতে চাইলে বড় ভুল করবেন।’ শুক্রবার (২৩ আগস্ট) ঢাবির কালো দিবস স্মরণে ঢাবির ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) তে এক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন ভিপি নুর। নুর বলেন, ‘২০০৭ সালের ২৩ আগস্ট একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিছু সেনা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ওপর আঘাত করে। ২৩ আগস্টের এ আঘাত শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ওপর ছিল না। এ আঘাত ছিল এ দেশের মুক্তিকামী মানুষের ওপর। ১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনের সূত্রপাত থেকে শুরু করে নব্বইয়ে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন, সর্বশেষ ২০০৭ সালের ২৩ আগস্টের এ আন্দোলন, গণমানুষের অধিকার আদায়ের প্রতিটি আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছেন ঢাবির ছাত্র শিক্ষকরাই। তিনি বলেন, মুক্তিকামী মানুষের অধিকার আদায়ে যেকোনো আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ঝাঁপিয়ে পড়বে। ‘আপনারা (শিক্ষকরা) যারা মনে করেন তাদের শৃঙ্খলবদ্ধ করে রাখবেন, তাহলে সেটি আপনাদের জন্যই অনেক বড় ভুল হবে এবং এ দেশের জন্য করুণ পরিণতি বয়ে আনবে। কারণ এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষকদের অনুকরণ করে সকল বিশ্ববিদ্যালয়। সুতরাং আমাদেরকে জাতির জন্য এক অনুকরণীয় আদর্শ হতে হবে।’ যারা ( শিক্ষকরা) শিক্ষার্থীদের শৃঙ্খলাবদ্ধ করে রাখতে চায় তাদের সমালোচনা করে নুর বলেন, ‘দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়, যখন একদিকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষকরা মানুষর অধিকার আদায়ে নিজেদের জীবনকে বিপন্ন করে দিয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছে। ঠিক একই সময়ে কিছু শিক্ষক, কুচক্রী মহলকে সহায়তা করে।

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, ‌‌‘২০০৭ সালে ঘটনায় সেনাবাহিনী নয় সেদিন কর্তৃপক্ষের দায়িত্বের ঘাটতি ছিল। তবে ছাত্রদের ন্যায়সঙ্গত বক্তব্য নেয়নি কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে সে দিকে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান তিনি।’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন- রেজিস্টার এনামুজ্জামান, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড এএসএম মাকসুদ কামাল। উল্লেখ, সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে, ২০০৭ সালের এই দিনে রাষ্ট্রীয় নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। পরে তা অন্যত্র ছড়িয়ে পড়ে। তখন থেকে এইদিনকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কালো দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

আরো খবর

Leave a Reply