বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২৬শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

বাণিজ্যমন্ত্রীর উদার মহানুভবতা!

ভোলা পল্লী বিদ্যুত সমিতি কর্তৃক ঘরের চালের উপর দিয়ে জোরপুর্বক নেওয়া নিয়ম বহির্ভুত বিদুৎ লাইনে বিদুৎস্পৃষ্ট হয় শিশু লিয়া। তার বাম হাত ও দুই পায়ের দুটি করে আঙ্গুল কেটে ফেলায় তাকে পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়।

এই নির্মমতার ঘটনা একাধিক প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক সংবাদমাধ্যমে প্রচার হওয়ার সুবাধে লিয়ার পরিবার কিছু আর্থিক সহায়তা পায়।

তবে অপ্রতুল ওইসব সহায়তায় লিয়ার চিকিৎসা, কৃত্তিম হাত ও পুনর্বাসন সম্ভব হচ্ছিল না। তবে শিশুটির পরিবারের এই অসহায়ত্বে পাশে দাঁড়ালেন বরেণ্য রাজনীতিক-বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

শুক্রবার সকালে বাণিজ্যমন্ত্রীর বনানীর বাসভবনে লিয়া, লিয়ার মা-বাবা ও প্রতিবেদকসহ সাক্ষাত করে ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা দিলে মন্ত্রী নির্মম এই নিষ্ঠুরতার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। একইসঙ্গে পল্লী বিদুৎ সমিতির এহেন দায়িত্বহীনতার জন্যও তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

সাক্ষাৎকালে বাণিজ্যমন্ত্রী লিয়াকে তাহার পাশে নিয়ে বসান লিয়ার গায়ে হাত বুলিয়ে দিয়ে লিয়াকে আদর করেন। নিজের নাতনীসম শিশুটির এই পরিণতি দেখে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন বর্ষিয়ান এই রাজনীতিক। এসময় তিনি লিয়ার সকল চিকিৎসার ব্যয়ভার বহনের ঘোষণা দেন। এছাড়া একটি কৃত্রিম হাত লাগিয়ে দেওয়ারও আশ্বাস দেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী ব্যক্তিগতভাবে দুই লাখ টাকা, পল্লী বিদুৎ সমিতির পক্ষ থেকে এক লাখ টাকা ও উপস্থিত ভোলার আরও কয়েকজন বিত্তবান ব্যাক্তির নিকট হতে দুই লাখ টাকার অনুদানসহ মোট পাঁচ লাখ টাকার একটি এফডিআর পঙ্গুত্ববরণকারী লিয়ার নামে খুব দ্রুত করে দিবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন।

বাণিজ্যমন্ত্রীর এমন উদার মহানুভবতায় লিয়ার মা-বাবার অশ্রুসজল হয়ে পড়েন। তারা বলেন, মেয়েটির ভবিষৎ নিয়ে আমরা খুবই উদ্বিগ্ন ও শংকিত ছিলাম। আজ মাননীয় মন্ত্রী সকল দায়িত্ব নেওয়ায় তার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ নয় চিরঋনী হয়ে রইলাম।

তারা বলেন, লিয়া বিদুৎস্পৃস্ট হয়ে মেডিকেলে ভর্তি হওয়ার পর কেউই এগিয়ে আসেনি সর্বপ্রথম দক্ষিন বালিয়া গ্রামের জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাস্টমস ও ভ্যাট পরিদর্শক মোঃ জোবায়েদ হোসেন যিনি সর্বপ্রথম চিকিৎসায় আর্থিক সাহায্য এগিয়ে আসেন।

উল্লেখ্য, বাণিজ্যমন্ত্রীর সংসদীয় আসন দ্বীপজেলা ভোলার সদর উপজেলার ১৩ নং দক্ষিণ দিঘলদী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বালিয়া গ্রামের নেয়ামতপুর হাইস্কুল সংলগ্ন গ্রামে এক দরিদ্র দিনমজুরের নয় বছরের শিশু লিয়া ভোলা পল্লী বিদুৎতের অবৈধ নিয়ম বহির্ভুত জোরপুর্বক ঘরের চালের উপর দিয়ে টানা বিদুৎ লাইনের নিষ্ঠুরতার শিকার হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারী ইউনিটের ৪র্থ তলার মহিলা ওয়ার্ডের ১১ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। লিয়ার বাম হাত সম্পুর্ন কেটে ফেলা হয় ও দুই পায়ের দুটি করে আঙ্গুল কেটে ফেলা হয়।

আরো খবর

Leave a Reply