বাংলাদেশ, সোমবার, ২৫শে মার্চ, ২০১৯ ইং, ১১ই চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।

রাঙ্গামাটিতে আগুনে শতাধিক বসতবাড়ী পুড়ে ছাই

শেয়ার করুন
0Shares

 

চৌধুরী হারুনুর রশীদ,রাঙ্গামাটি

রাঙ্গামাটি শহরের রিজার্ভ বাজার নিজাম কোম্পানী কলোনী টিলাপড়া এলাকায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় শতাধিক কাচা বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। রোববার সকাল পৌনে ৯টার দিকে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।

স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল পৌনে নয়টার দিকেই স্থানীয় বাবুল কেরাণীর ঘর থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। মুর্হূতের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ায় শতাধিক পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্তদের দাবি, অগ্নিকান্ডের ঘটনায় প্রায় দুই কোটির টাকার অধিক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্ত  বাবুল কেরানী প্রতিবেদকে জানান, সকালে ঘর থেকে বের হয়ে গেছি। আগুনের খবর পেয়ে এলাকায় এসে দেখি আমরা ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আগুনে ল্যাপটপে নীচে রাখা টাকা ও আমার দুই সন্তানের অনার্স শেষ বর্ষ অন্যজন অনার্স প্রথম বর্ষের সার্টিফিকেট পুড়ে ছাই হয়ে গেছে ।

কাঁদদে কাঁদতে তিনি পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ভাই, পরনের শাড়ি ছাড়া আর কিছুই বাঁচাতে পারি নাই। তিনি আর্থিকভাবে সাহায্যের দাবি জানান।

ওয়ার্ড কাউন্সিল করিম আকবর প্রতিবেদকে জানান, সকালে আগুনের ঘটনায় শতের অধিক ঘরে পুড়েছে। স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাওয়াল উদ্দীনকে নিয়ে তালিকা প্রনয়ন করা হচ্ছে। পরে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে পৌরসভাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে সহযোগিতা করা হবে।

অগ্নিকান্ডের ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয়রা, পুলিশ, সেনাবাহিনী ও বিজিবির সহয়তায় রাঙ্গামাটি, কাপ্তাই ও কাঊখালী ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে দুই ঘণ্টার বেশি সময় লেগেছে। জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ ,পৌরসভার মেয়রসহ বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

রাঙ্গামাটি ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক দিদারুল আলম বলেন, ‘আমরা আগুনের খবর পাওয়ার সাথে সাথে ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য চেষ্টা করি। ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট আড়াই ঘণ্টা চেষ্টার পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছে। এখনো ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিধারণ করা সম্ভব হয়নি।তিনি জানান, তবে এখনো পর্যন্ত আগুনের সূত্রপাত্র এবং ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ জানা যায়নি। তবে আনুমানিক ৮০ লক্ষ টাকার মতো ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ঘটনার তদন্ত চলছে, পরে বিস্তারিত জানা যাবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, আগুনের ঘটনার পর পরই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ ও পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর।

শেয়ার করুন
0Shares

আরো খবর

Leave a Reply