রবিবার ২২শে অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৭ই কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম

ঈদের ছুটি শেষে বেনাপোল বন্দরে আমদানি-রফতানি শুরু

 

এম ওসমান, বেনাপোল প্রতিনিধি

পবিত্র ঈদুল আযহার টানা ৩দিন ছুটি শেষে সোমবার থেকে অফিস আদালত খুললেও দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোল বন্দরে এখনো ফিরে আসেনি কর্মচাঞ্চল্য। বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে ভারত বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে পুনরায় চালু হয়েছে। আগামী সপ্তাহের আগে বন্দরের কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসবে না বলে ধারনা করছেন বন্দর ব্যবহারকারীরা।

কাস্টম ও বন্দর সূত্রে জানা গেছে, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে বেনাপোল-পেট্রাপোল স্থলবন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) বিকেল থেকে সোমবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকাল পর্যন্ত আমদানি-রফতানি বানিজ্য বন্ধ ছিল। সোমবার ছুটি শেষে অফিস খুললেও লোকজনের উপস্থিত নেই বললেই চলে। অনেক কর্মকর্তাদের চেয়ার খালি দেখা গেছে। আমদানি-রফতানি চললেও রফতানিমুখী কয়েকটি পণ্য ছাড়া বন্দর থেকে তেমন পণ্য খালাস হয়নি। আগামী সপ্তাহ থেকে পুরোদমে বন্দরের কর্মচাঞ্চল্য ফিরে আসবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট মহল।

বেনাপোল কাস্টমস ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরোয়াডিং এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান স্বজন জানান, সোমবার সকাল থেকে পেট্রাপোল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে। সোমবার বন্দর ও কাস্টমস খোলা থাকলেও ঈদের ছুটির পর প্রথম কর্মদিবস হওয়ায় কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শুভেচ্ছা বিনিমিয়ে সময় কাটানোয় শুল্ক বিভাগসহ সকল কাজকর্ম চলছে ধীর গতিতে। ছুটি ও পণ্য খালাস তেমন না হওয়ার কারনে দু’দেশের বন্দর এলাকায় শতশত পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকা পড়েছে। আমদানিকারকরা সময় মত পণ্য ডেলিভারী না নেওয়ায় আমদানি-রফতানি স্বাভাবিক হতে আরো কয়েকদিন সময় লাগবে বলে তিনি জানান।

বেনাপোল আমদানি-রফতানিকারক সমিতির সহ-সভাপতি আমিনুল হক জানান, ঢাকাসহ দেশের অধিকাংশ আমদানিকারকরা ঈদের আমেজ কাটিয়ে উঠে এখনও পর্যন্ত তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলতে পারেনি। অনেক আমদানিকারকরা পরিবার পরিজনের সাথে ঈদ করতে চলে যান দেশের বাড়িতে। দোকানের লোকজন ও লেবাবরাও দেশে গেছেন ঈদ করতে। তারাও আসেন অনেক পরে। ঈদের আমেজ কাটার পর তারা আমদানিকৃত পণ্য চালান খালাস করে থাকেন। ঈদের তিন দিন আগে ও পরে ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান চলাচল বন্ধ রাখার সরকারি সিদ্ধান্তের কারণে বুধবারের আগে পণ্য বোঝাই ট্রাক হাইওয়েতে চলাচল করতে পারবে না। এই জন্য বন্দর থেকে পণ্য খালাসের সম্ভাবনাও কম বলে জানান তিনি।

বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টম কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ জানান, সোমবার সকাল থেকে পেট্রাপোল ও বেনাপোল বন্দর দিয়ে পুরোদমে আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে। বেলা ৪টা পর্যন্ত ৭৮ ট্রাক পণ্য ভারত থেকে বেনাপোল বন্দরে এসেছে। আর ভারতে গেছে মাত্র ১২ ট্রাক পণ্যবাহী ট্রাক।

বেনাপোল স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) রেজাউল করিম বলেন, ঈদের ছুটি ও ঈদের আগে পরে পণ্যবাহী ট্রাক চলাচলে বিধি নিষেধ থাকায় বন্দরে আমদানি পণ্যের চাপে পণ্যজটের আশঙ্কা রয়েছে। যারা পণ্য খালাস করতে আসবে তাদের পণ্য দ্রুত খালাসের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বন্দর হ্যান্ডলিং শ্রমিকদের।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার মো: শওকাত হোসেন জানান, ছুটির ঘাটতি পুষিয়ে নিতে দ্রুত পণ্য খালাস করার জন্য শুল্ক ভবনের সকল বিভাগের কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ২৪ ঘন্টা কাজও চলবে বলে তিনি জানান।

Categories: অর্থ ও বাণিজ্য

Leave A Reply

Cheap Reseller Hosting in Bangladesh