বাংলাদেশ, রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গাজীপুরে ৫ বছরের নাতনিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ নানা গ্রেফতার

মুহাম্মদ আতিকুর রহমান
গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় পাঁচ বছরের নাতনিকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মুদি দোকানী নানাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

৩ সেপ্টেম্বর রবিবার রাতে স্থানীয় এমসি বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার আবুল কাশেম (৫০) ময়মনসিংহের গফরগাঁও থানার দূবাইল এলাকার মৃত মুনসুর আলীর ছেলে।

শ্রীপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ নাজমুল শাকিব জানান, কাশেম শ্রীপুরের এমসি বাজার মাজম আলী মোড় এলাকার আক্তার হোসেনের বাড়ি ভাড়া থাকেন। বাড়ি লাগোয়া তার একটি মুদির দোকান রয়েছে। পাশেই তার মেয়ের বাসা। মাঝে মধ্যেই নাতনি তার নানার ঘরে গিয়ে ঘুমায়। ৩০ আগস্ট বুধবার রাতেও অন্য দিনের মত নাতনি নানার বিছানায় ঘুমিয়েছিল। সেদিন রাত ১০টার দিকে বিশ্রাম নেয়ার কথা বলে নানা আবুল কাশেম শয়ন কক্ষের পাশের দোকান থেকে ঘরের ভেতরে যায় এবং তার স্ত্রীকে দোকানে পাঠায়।

এক পর্যায়ে নানা ঘুমিয়ে থাকা নাতনিকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে ঘুম ভেঙ্গে যায় এবং চিৎকার করে উঠে নাতনি। নাতনির কান্নার শব্দ পেয়ে নানী দোকান থেকে ঘরে যান এবং কান্নার কারণ জানতে চাইলে কোনো খারাপ স্বপ্ন দেখে ভয় পেয়ে থাকতে পারে বলে জানায় নানা। তারপরও নাতনির কান্না না থামলে তাকে তার মায়ের কাছে দিয়ে যায় নানী।

মায়ের কাছে মেয়েটি জানায়, নানা তার পরনের হাফপ্যান্ট খুলে ফেলেছিল এবং কান্নার সময় তার মুখ চেপে ধরার চেষ্টা করেছিল। পরে মা মেয়ের গোপনাঙ্গে তেলজাতীয় কিছু মাখানো দেখতে পান। পরদিন মা ঘটনাটি মেয়ের বাবাকে জানায়। এ ব্যাপারে বাবা স্থানীয় গণ্যমান্যদের পরামর্শ জানতে চান। স্থানীয়রা রবিবার দুপুরে মিমাংসার কথা বলে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু মা বিষয়টি বুঝতে পেরে পুলিশকে জানায় এবং রাতে শ্রীপুর থানায় নিজে বাদী হয়ে মেয়েটির নানার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে রাতে নানাকে গ্রেফতার করা হয়।

এসআই নাজমুল শাকিব আরও জানান, সোমবার দুপুরে নাতনিকে (২২ ধারায় জবানবন্দি নিতে) এবং নানাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরো খবর

Leave a Reply