১৫ জুলাই ২০২৪ / ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / সকাল ১১:০৫/ সোমবার
জুলাই ১৫, ২০২৪ ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ

ঠাণ্ডা মিয়ার গরম কথা (৩৩৮)এম এ লতিফ এমপি সমীপে

     

মাননীয়,

      চট্টগ্রাম শিল্প ও বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি  এম এ লতিফ  এমপি সমীপে,

শ্রদ্ধেয় লতিফ ভাইজানরে,

গরম গরম কথার শুরুতে আমার লাখ কোটি সালাম জানিবেন।আশা করি, আল্লাহ মালিকের অপার মহিমায় ভালো থাকিয়া ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানে ভিশন ও মিশন কায়েমসহ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে নানান ফর্মূলা তৈরী ও বাস্তবায়ন করিয়া ভালোই আছেন। আমিও গ্রাম বাংলার এক মফস্বল শহরে থাকিয়া দেশের ভবিষ্যতের কথা ভাবিয়া ভাবিয়াই নানান রকম চিন্তা করিয়া ছাগলের তিন নাম্বার বাচ্ছার মতো খাইয়া না খাইয়া বাঁচিয়া আছি। গেলবারে শিক্ষামন্ত্রী ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল  সমীপে গরম কথা লিখিবার সময় এইবার আপনার সমীপে লিখিব বলিয়াছিলাম, এইজন্য লিখিতেছি বলিয়া রাগ করিবেন না বরং শত ব্যস্ততার মধ্যেও গরম কথাটুকু পড়িয়া দেখিবেন ও যাহা প্রয়োজন তাহা করিবেন আর ভুল হইলে নিজ গুনে মাফও করিয়া দিবেন।

ভাইজানরে,

 আপনি হইলেন, চট্টগ্রামের বন্দর, ইপিজেড ও পতেঙ্গা অঞ্চলের ৪ বারের নির্বাচিত এমপি ও ব্যবসা বাণিজ্যের প্রাণকেন্দ্র সমুদ্র বন্দর চট্টগ্রামের শিল্প ও বণিক সমিতির সভাপতি। বর্তমানে আপনার ছেলে এই সমিতির সভাপতি। এই চেয়ারে যাহারা বসেন তাহাদের ভাগ্যে এমপি – মন্ত্রী কপালে জুটিয়া যায়। আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, জাফরুল ইসলাম চৌধুরী, সাইফুজ্জান চৌধুরী জাবেদ তাহারা এই সমিতির সভাপতি হইয়াছিলেন তারপর এমপি হইয়াছিলেন এরপর মন্ত্রী।তদবির করিলে আপনিও মন্ত্রী হইবেন বলিয়া আপনার সমর্থকেরা বলিতেছে। ৪ বার এমপি হইবার যোগ্যতা কয়জনেরই বা থাকে ?  যাক, সেইসব কথা।

ভাইজানরে,

  চট্টগ্রামে ব্যবসায়ীরা ঐক্য নাই কেন ? আবুল খায়ের গ্রুপ, এস আলম গ্রুপ, কেডিএস গ্রুপ, পিএইচপি গ্রুপ ও টিকে গ্রুপ ইহাদেরকে সারাদেশের মানুষ ব্যবসায়ী হিসাবে চিনিয়া থাকে। ইহাদের ব্যবসা রহিয়াছে দেশের সবখানে।কিন্ত বাঘা বাঘা এইসব ব্যবসায়ীরা কেন আপনাদের চেম্বারে ঠাঁই পেলেন না। ইহারা আলাদা চেম্বার প্রতিষ্ঠা করিয়া কাজ চালাইতেছেন । এক সময় শিল্প ও বণিক সমিতি বাবু পরিবারের নিয়ন্ত্রণে ছিল। তখন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু চেম্বারের সভাপতি ছিলেন। বাবু ও বাবু পুত্র জাবেদ দুইজনই চেম্বারের সভাপতি ছিলেন। একই ইতিহাস আপনারও।

ভাইজানরে,

  আপনার নিবাচনী এলাকায় দিন দিন অপরাধ বাড়িতেছে। ঘনবসতি এলাকা এখন বন্দর ও ইপিজেড। আপনার বিরুদ্ধবাদীরা বসিয়া নাই । এইসব বিষয়ে চোখ কান খোলা রাখিবেন। ৭ জানুয়ারীর নির্বাচনে  মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী আপনার পক্ষে কাজ করিয়াছেন । অন্যদিকে জিয়াউল হক সুমনের পক্ষে কাজ করিয়াছেন সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন।  আ জ ম নাছির উদ্দিন ভোটের সময় সক্রিয় ছিলেন বলিয়া উৎসবমূখর পরিবেশ বিরাজ করিয়াছে এই অঞ্চলে। রেজাউল করিম চৌধুরী ও আপনার উপস্থিতিতে আওয়ামী লীগের সভায় আ জ ম নাছির বলিয়াছেন এক সময় বন্দর ও পতেঙ্গার মানুষ লতিফ সাহেবকে শুইয়ে রাখিয়াছেন এখন তাহাকে মক্কা মদিনার খেজুর খোরমা মনে করিতেছে। নাছির সাহেবের অল্প কথার মধ্যে বহুত কথা রহিয়াছে বলিয়া রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলিতেছে।

আজ আর না আপনার মঙ্গল ও সুস্বাস্থ্য কামনায় ইতি আপনারই গ্রাম বাংলার অখ্যাত ঠান্ডা মিয়া

গ্রন্থনাঃ  ম. আ. হ

তারিখ ২২জুন ২০২৪

আগামী সংখ্যায় অর্থ প্রতিমন্ত্রী ওয়াসিকা আয়শা খান এমপি সমীপে ঠাণ্ডা মিয়ার গরম কথা (৩৩৯) সম্প্রচার করা হইবে।

About The Author

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply