১৫ জুলাই ২০২৪ / ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ / সকাল ১০:৪২/ সোমবার
জুলাই ১৫, ২০২৪ ১০:৪২ পূর্বাহ্ণ

সার্বজনীন পেনশন স্কীম চালু করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চসিক মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী’র ধন্যবাদ

     

সম্প্রতি সরকার প্রবর্তিত ‘সর্বজনীন পেনশন স্কিম’ চালু করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

তিনি বলেন, এই পেনশন স্কীম চালুর মধ্য দিয়ে দেশের জনগনের অর্থনৈতিক সুরক্ষার ক্ষেত্রে নব দিগন্তের সূচনা করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে গণমাধ্যমে প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি আরো উল্লেখ করেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান গরীব-দুঃখী, অসহায় মানুষের মুখে হাঁসি ফোটানোর জন্য আজীবন সংগ্রাম করেছেন। দেশের প্রতিটি মানুষ পেট ভরে খেতে পারবে, নিরাপদে ঘুমাতে পারবে, অর্থনৈতিক ও সামাজিক নিরাপত্তা পাবে-এটাই ছিল বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন। দেশের স্বাধীনতার শত্রু ও স্বার্থান্বেষী মহলের ঘৃন্য ষড়যন্ত্রে ৭৫এর ১৫ আগস্ট জাতির জনককে সপরিবারে নৃশংসভাবে হত্যার পর এদেশের মানুষের না ছিল ভোটের অধিকার, না ছিল ভাতের অধিকার। সৌভাগ্যক্রমে, প্রবাসে অবস্থান করায় ১৯৭৫এর ১৫ আগস্টে নরপশুদের হত্যাযজ্ঞ থেকে বেঁচে যাওয়া দুই কন্যার মধ্যে প্রথম কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৮১সালে দেশে প্রত্যাবর্তন করে স্বৈরাচারের রক্তচক্ষুর শাসানি ও মৃত্যুকে পায়ে দলে দীর্ঘ সংগ্রামের মধ্য দিয়ে জনগণের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিয়েছেন। আন্দোলন-সংগ্রামের কঠিন পথচলায় বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা বাংলার আপামর মানুষের প্রিয় নেত্রীতে পরিনত হন এবং ১৯৯৬ সালে গণমানুষের রায় নিয়ে সরকার পরিচালনা সুযোগ পেয়েই আপামর জনগোষ্ঠীর সামাজিক নিরাপত্তা বিধানের জন্য নানান ভাতা চালু করতে থাকেন। ষড়যন্ত্রের নির্বাচনে ২০০১ সালে সরকার পরিচালনা থেকে ছিটকে পড়লেও গণমানুষের ভালবাসায় ২০০৮সালে আবারো রাষ্ট্র পরিচালনায় ফিরে একের পর এক ভাতা চালু করেন যাতে সামাজিক সাম্যতা ও সকল মানুষের অর্থনৈতিক নিরাপত্তা বিধান করা যায়। ‘সার্বজনীন পেনশন স্কীম’ চালু করার মধ্য দিয়ে দেশের সকল স্তরের মানুষ অর্থনৈকিভাবে তাদের সুদৃঢ় নিরাপত্তা পাবে। বিশ্বের উন্নত রাষ্ট্রসমূহে এ ধরনের স্কীম থাকলেও আমাদের দেশের মানুষের কাছে এটি ছিল অলীক স্বপ্ন। চাকুরীজীবি, ব্যবসায়ী, প্রবাসী ও নিম্ম আয়ের মানুষের জন্য পৃথক পৃথক ‘প্রগতি’, ‘সুরক্ষা’, ‘সমতা’ এবং ‘প্রবাসী’ নামে ৪টি প্যাকেজের মাধ্যমে দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীকে এ কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হবে। পেনশন স্কীম চালু করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরনের পথে আরো একটি উল্লেখযোগ্য মাইলফলকে ছুঁয়ে গেছেন। এতে দেশের সর্বশ্রেনীর মানুষ পেনশনের আওতায় আসার পথ উম্মোচিত হয়েছে। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন, ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু, জয়তু শেখ হাসিনা, বাংলাদেশ চিরজীবি হোক।

About The Author

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply