জুলাই ২, ২০২২ ১১:৩১ অপরাহ্ণ

নেপালে বিধ্বস্ত প্লেনের সন্ধান, ১৪ লাশ উদ্ধার

খোঁজ মিলেছে নেপালে নিখোঁজ তারা এয়ারের প্লেনটির। বিধ্বস্তের স্থান থেকে ১৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের দেহাবশেষ খোঁজার কার্যক্রম চলছে।
সোমবার (৩০ মে) নেপালের সংবাদমাধ্যম কাঠমান্ডু পোস্ট জানিয়েছে, পাহাড়ে আছড়ে পড়ায় প্লেনটি টুকরো টুকরো হয়ে যায়। থাসাং গ্রামের সানো সোয়ারে ভিরে ১০০ মিটার এলাকাজুড়ে এর ধ্বংসাবশেষ ছড়িয়ে পড়ে।
‘১৪ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে’ উল্লেখ করে তারা এয়ারের মুখপাত্র সুদর্শন বার্তাউলা গণমাধ্যমকে বলেন, ‘এটি বিধ্বস্ত হওয়ার জায়গা থেকে শুরু করে প্রায় ১০০ মিটার এলাকা জুড়ে লাশগুলো ছড়িয়ে পড়েছে। উদ্ধারকর্মীরা সব নিখোঁজ যাত্রীর দেহাবশেষ খুঁজছেন।’
তিনি জানান, প্লেনটি সরাসরি পাহাড়ে আছড়ে পড়ায় তা টুকরো টুকরো হয়ে যায়। এতে ১৯ যাত্রী ও ৩ ক্রু ছিলেন। তাদের মধ্যে ২ জার্মান, ৪ ভারতীয় ও ১৩ জন নেপালি।
দেশটির বেসামরিক বিমান কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, বাকি ২ যাত্রীর জাতীয়তা এখনো জানা যায়নি।
গত রোববার উদ্ধার কার্যক্রমের জন্য নেপালের সেনাবাহিনীর সহায়তা চাওয়া হয়। কিন্তু, আলোর স্বল্পতা ও বৈরি আবহাওয়ার কারণে ঘটনাস্থলে হেলিকপ্টার নিয়ে যেতে পারেননি।
দেশটির আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, গতকাল রোববার সকাল থেকেই পোখারা-জমসম এলাকা ঘন মেঘে ঢাকা ছিল। সে কারণে উদ্ধার হেলিকপ্টার রওনা হয়েও ফিরে আসতে বাধ্য হয়।
নেপালের সেনাবাহিনী জানিয়েছে, প্লেনটি নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ঘণ্টা খানেক পর দেশটির উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের মাস্ট্যাং জেলার থাসাং গ্রামের সানো সোয়ারে ভিরে এর ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে।
এর আগে সেনাবাহিনীর মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নারায়ণ সিলওয়াল টুইটারে বলেছিলেন, ‘সেনা সদস্যরা প্লেনটির বিধ্বস্ত হওয়ার জায়গাটি চিহ্নিত করেছেন। উদ্ধার কার্যক্রম চলছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।’
গতকাল রোববার ২২ আরোহী নিয়ে পর্যটন শহর পোখারা থেকে নেপালের মধ্যাঞ্চলে পর্যটকবান্ধব পার্বত্য শহর জমসমে যাওয়ার পথে প্লেনটি নিখোঁজ হয়। স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ৫৫ মিনিটে পোখারা ছেড়ে যাওয়ার প্রায় ১২ মিনিট পর নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে এর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।
শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply