অক্টোবর ১৬, ২০২১ ৬:৪২ পূর্বাহ্ণ

প্রতিটি মহল্লায় গিয়ে খোঁজ নিচ্ছেন বিশাল ব্যবধানে বিজয়ী কাউন্সিলর রাসেল

মাজহারুল ইসলাম চপল, ব্যুরোচীফ

 

 

 

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ড উপনির্বাচনে বিশাল ব্যবধানে জয়লাভের পর প্রতিটি মহল্লায় গিয়ে সকলের খোঁজ খবর ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছেন কাউন্সিলর রাসেল জামান। গত ৭ অক্টোবর উপনির্বাচনে টিফিন ক্যারিয়ার প্রতীক নিয়ে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগ ( পশ্চিম) এর সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল জামান। সারাদিন ভোট গ্রহন শেষে ৩৭১৯ ভোট পেয়ে বিশাল ব্যবধানে জয়লাভ করেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঠেলাগাড়ি প্রতীক নিয়ে একেএম রাসেদুল হক টুলু পেয়েছেন ১৫৫১ ভোট। অর্থাৎ ২১৭২ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন রাসেল জামান। বিজয় লাভের পর প্রতিটি মহল্লায় যেন ভোটারদের মাঝে আনন্দের জোয়ার নেমে আসে। ভাষতে থাকে আনন্দ সাগরে, করতে থাকে আনন্দ মিছিলসহ আতসবাজি। রাসেল জামানও বিজয়মালা গলায় নিয়ে সবার সাথে সেই আনন্দ ভাগাভাগি করেন। রাসেল জামান বিজয় লাভের পর নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি মহল্লায় ও বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নেয়া সহ সকলের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। এছাড়াও এলাকার মানুষের বিপদ আপদে পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এবিষয়ে হোসেনিগঞ্জ এলাকার রাসেল জামানের একনিষ্ঠ্য মহিলা কর্মী কেকা, আসমা, ইভা, ইতি সহ অনেকেই এই প্রতিবেদককে জানান, আমরা দীর্ঘদিন থেকে রাসেলকে ভালবেসে টিফিন ক্যারিয়ারে পক্ষে কাজ করেছি। ঠেলাগাড়ির সমর্থকরা অনেক আজেবাজে মন্তব্য ও গালিগালাজ করেছে আমাদেরকে। তারপরও আমরা চুপ করে সহ্য করেছি শুধু রাসেলকে বিজয়ী করার জন্য। ওরা সব সময় চেয়েছিল গন্ডগোল করে নির্বাচন বানচাল করতে কিন্তু তারা পারেনি। আমরা রাসেলকে বিজয়ী করার জন্য ভোটের দিন রোযা রেখেছিলাম। আল্লাহ আমাদের আশা পুরন করেছে। আমরা খুবই আনন্দিত। এরপর ঐ এলাকার এক পুরুষ সমর্থক কর্মী জানান, আমরা সবাই খুব আতঙ্কিত ছিলাম, কারন ঠেলাগাড়ির সমর্থকরা আমাকে আগেই ধাক্কাধাক্কি ও মারধর করেছিল। এবং ভোটের আগের রাতে ঠেলাগাড়ির সন্ত্রাসী বাহিনীরা লাঠি, জিআই পাইব, হাসুয়া সহ দেশীও অস্ত্র মহল্লায় ঢুকিয়েছিল। কারন তাদের উদ্দেশ্য ভাল ছিলনা। তবে প্রশাসনের চক্ষুস তৎপরতায় তাদের কাঙ্খিত উদ্দেশ্য বাস্তবায়ন হয়নি। অবশেষে সকলের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল আজকের এই বিজয়। আমরা সকলেই আনন্দিত এবং সকলের দোয়া থাকবে রাসেল জামান যেন এই ওয়ার্ডবাসির সেবা ও উন্নয়ন করতে পারে। পরে রাসেল জামানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমার জন্য সবাই খুব পরিশ্রম করেছে বিশেষ করে মহিলারা। এলাকার জনগণ যেমন আমাকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে, ঠিক আমিও সব সময় সেবা ও এলাকার উন্নয়ন করবো ইনশাল্লা

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply