ডিসেম্বর ৩, ২০২১ ৪:৫১ পূর্বাহ্ণ

কর্মের মাধ্যমে মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন নুরুল ইসলাম

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও চান্দগাঁও থানা আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও সাবেক কমিশনার মরহুম নুরুল ইসলাম এর নাগরিক শোক সভা সিএন্ডবি ফায়ার সার্ভিস প্রাঙ্গনে নাগরিক শোকসভা কমিটির আহবায়ক আবুদচ ছালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

 

 

 

 

আজ সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত এ নাগরিক শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাবেক গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি বলেন, মৃত্যু নিয়ে এটিই বোধ হয় জীবিত মানুষের কাছে সবচেয়ে বেশি প্রিয় ভাষণ : ‘মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে, মানবের মাঝে আমি বাঁচিবারে চাই’। মরণশীল মানবের এই আকুতি কোন ভাবেই চিরন্তন সেই অমোঘ ও অনিবার্যতাকে স্পর্শ করতে পারে না। অন্তত শারীরিকভাবে তো কোনোক্রমেই নয়। তবে, শারীরিক মৃত্যুর পরেও অনন্তকাল মানুষ ভবিষ্যৎ মানবের মাঝে বেঁচে থাকতে পারেন-কেউ কেউ বেঁচে থাকেন। বেঁচে থাকেন তার কর্মে, বেঁচে থাকেন তার সৃজনশীলতার।

নুরুল ইসলামের বর্ণাঢ্য রাজনীনৈতিক কর্মকান্ডের কথা স্মরণ করে তিনি আরো বলেন, নুরুল ইসলাম ছিলেন মুজিব আদর্শে নিবেদিত প্রাণ একজন সংগ্রামী নেতা। গণমানুষের অধিকার আদায়ে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে চট্টগ্রামের প্রত্যেক গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামে তার ভূমিকা অসামান্য। তার অমায়িক ব্যবহার ও মানুষের প্রতি নিখাদ ভালোবাসা তাকে চান্দগাঁও এর মানুষের অত্যন্ত প্রিয় ব্যক্তিত্ব করে তোলে। চট্টগ্রামের নেতৃবৃন্দের কাছে তাঁর আলাদা গুরুত্ব ও গ্রহণযোগ্যতা ছিল। তার সততা, কর্মনিষ্ঠতা ও অসাধারণ ব্যাক্তিত্বের কারণে এলাকাবাসীর কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল বলেন, নূরুল ইসলামের মত নেতা নতুন প্রজন্মের রাজনৈতিক নেতা কর্মীদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবেন।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র প্রার্থী মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, সাংগঠনিক দক্ষতা ও নির্লোভ নিরহংকার চরিত্রের কারণে নুরুল ইসলাম এলাকার মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়েছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ, সাবেক সিডিএ চেয়ারম্যান ও নুরুল ইসলাম নাগরিক শোকসভা কমিটির আহবায়ক আবদুচ ছালাম বলেন, চান্দগাঁও এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের কল্যাণে নুরুল ইসলাম ছিলেন অত্যন্ত নিবেদিত প্রাণ। তিনি এ এলাকার উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখে গেছেন। যারা এলাকার এবং দেশের উন্নয়নে অবদান রেখে গেছে আমরা জীবিতরা তাদেরকে ভুলতে পারি না। জীবন যাপনের নানা অনুষঙ্গে আমরা তাদের স্মরণ করি। তারা মৃত্যুঞ্জয়ী।

আমি সিডিএ চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে চান্দগাঁও থানা এলাকার সমগ্র উন্নয়ন কাজে তাকে পাশে পেয়েছি। তিনি ছিলেন একজন ভালো পরামর্শক।

নাগরিক শোক সভা কমিটির সদস্য সচিব ফৌজুল আজিম, সরোয়ার খান ও মো. হুমায়ন করিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, মহানগর আওয়ামীলীগ সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শহিদুল আলম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগের উপ-পাট ও বস্ত্র বিষয়ক সম্পাদক তারেক মাহামুদ পাপ্পু, তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা আরশেদুল আলম বাচ্চু, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা শামসুল আলম, নুরুল হুদা লালু, এস এম আনোয়ার মির্জা, মো. ফারুক, কাজী নুরুল আমীন মামুন, মো. হানিফ, মো. নাজিম উদ্দিন, মো. আবু তাহের, মরহুমের পরিবারের পক্ষে বক্তব্য রাখেন নুর মোহাম্মদ খোকন, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা মেজবাহ উদ্দিন মাঈনু, নিজাম উদ্দিন, ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা শওকত আকবর রাশেদ, জামাল উদ্দিন, হাসান মুরাদ জাবেদ, মোজাম্মেল হক, মো. ফারুক, থানা ও ওয়ার্ড ছাত্রলীগ নেতা ইয়াছিন আরাফাত কচি, নুরুনব্বী শাহেদ, দেলোয়ার হোসেন, এস.এম মামুন, জাকারিয়া তাহের, গিয়াস উদ্দিন আদর।

সভায় উপস্থিত ছিলেন, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক কেবিএম শাহজাহান, মহানগর যুবলীগের অন্যতম সদস্য সৈয়দ নজরুল ইসলাম, শামশেদ খোকন, মহানগর শ্রমিক লীগের সদস্য সচিব আবুল হোসেন আবু, শহিদুল আলম দুলাল, মো. সালাউদ্দিন, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বখতেয়ার সাঈদ ইরান, উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানবির, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা ছদরুল আলম খান, সাইফুদ্দিন খালেদ চৌধুরী, মোস্তাকিম লিটন, নাছির বিল্লাহ, মো. ইলিয়াছ, মো. আজম, শওকত আলম, মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক বীর প্রতীক, মুক্তিযুদ্ধা জামাল উদ্দিন, মুক্তিযুদ্ধা নুরুল আমীন, মুক্তিযুদ্ধা আবদুল মালেক খান, আলী আকবর, শামশুল আলম , হারুনুর রশিদ, দিদারুল আলম, হাছান জামাল, শাহজাহান মুরাদ, আবু তাহের, ছমিউদ্দিন, ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা ইব্রাহিম চৌধুরী খোকন, আনিছুর রহমাম, জিএস এস এম শাহাবুদ্দিন, রোকনুজ্জামান, ঈছা রাসেল, জসিম উদ্দিন, ওমর খয়ম তৈয়ব, মোফাক্কার হোসেন, হামিদুল হক, কফিল উদ্দিন, ওয়াসিম চৌধুরী, লিয়াকত চৌধুরী, এছারুল হক, মঈনুদ্দিন ফরহাদ, মাহফুজ মানিক, সাইফুদ্দিন সান্টু, এস.এম মাসুদ, মোহাম্মদ জাহেদ, শেখ খোকন, মো. হাসান খোকন, মো. মোরশেদ, মো. রাশেদুল আলম, আবু মোহাম্মদ সুমন, ওয়ার্ড স্বেচ্চাসেবক লীগ নেতা মো. আবদুর বাহাদুর, বাদশা চৌধুরী, জামাল উদ্দিন, সাখাওয়াত হোসেন, নুর কাশেম রোকন, মো. পারভেজ, মো. মহসিন, মো. তানভির, মো. পিপলু মো. ইমরানসহ প্রমুখ

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply