বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সরকারি চিকিৎসকদের অফিস সময়ে প্রাইভেট প্র্যাকটিসে নিষেধাজ্ঞা

বেসরকারি হাসপাতালের সেবামূল্য নির্ধারণ করে দেবে সরকার

 সরকারি হাসপাতালের কোনো চিকিৎসক বেসরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে কর্মরত থাকতে পারবেন না বলে সিদ্ধান্ত দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এ ছাড়া বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও সেবার মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। গতকাল সচিবালয়ে সারা দেশের বেসরকারি হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকগুলোর সেবা বিষয়ে পর্যালোচনা সভা শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা জানান।একই সঙ্গে বেসরকারি হাসপাতাল-গুলোর ক্যাটাগরিও নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। এজন্য একটি কমিটি করা হবে বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘সামনে কোভিড মোকাবিলার জন্য যেন প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলো প্রস্তুতি গ্রহণ করে। আমরা আরো বলেছি, স্বাস্থ্যসেবার মান আরো বাড়াতে হবে। যাদের লাইসেন্স নবায়ন করা নেই, তাদের তা নবায়ন করতে হবে।’ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, অফিস সময়ে সরকারি হাসপাতালের কোনো চিকিত্সক বেসরকারি স্বাস্থ্যপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত থাকতে পারবে না। কোনো কারণে কর্মরত অবস্থায় থাকলে টাস্কফোর্স ও সংশ্লিষ্টদের অবগত করতে হবে। হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ল্যাব, ক্লিনিকগুলোতে লাইসেন্স নিবন্ধন নম্বর স্পষ্টভাবে উল্লেখ থাকতে হবে। সভায় টাস্কফোর্স কর্তৃক সরকারি হাসপাতালের পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক পরিদর্শন ও অবৈধ কার্যক্রমের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত হয়।

এর আগে মঙ্গলবার সচিবালয়ের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের জনস্বাস্থ্য-১ অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব ও টাস্কফোর্স কমিটির আহ্বায়ক মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে টাস্কফোর্স কমিটির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কমিটির সদস্যসচিব শিব্বির ওসমানী, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হাসপাতাল শাখার পরিচালক ফরিদ হোসেন মিঞাসহ অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply