বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কর্মক্ষেত্রে সমান পরিশ্রম করেও মজুরি বৈষম্যের শিকার নারীরা   

  মোঃ  শাহিন   
  বেশিরভাগ কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ থাকলেও এখনো তাদের মজুরি বৈষম্য নিরসন সম্ভব হয়নি। এর জন্য বাংলাদেশের শ্রম আইন কে দুষলেন সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো ।এক্ষেত্রে সমান মজুরি সহ আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার বেশ কিছু পরামর্শ থাকলেও এখনো তা বাস্তবায়ন হয়নি ।পুরুষের পাশাপাশি নারী শ্রমিক মাটিকাটা ইট ভাঙ্গার অবকাঠমো তৈরিতে সহায়তাসহ অনেক কঠিন কাজই করে থাকেন ।
চট্টগ্রাম সিটি রাস্তায় ফকিরহাট কাজের সময় এমনই কয়েকজন নারী জানান, পুরুষের চেয়ে দেড়শ থেকে দুইশ টাকা কমে কাজ করছেন তারা ।নারী শ্রমিকরা বলেন, আমি যে কাজ করি পুরুষেরাও সেই কাজ করে। আমরা প্রায় আড়াইশো থেকে ৩০০টাকা আর পুরুষেরা পায় ৪০০ থেকে ৫০০টাকা ।পুরুষের পাশাপাশি এসব নারীরা ঢালাইয়ের কাজেও সমপরিমাণ শ্রম দিলেও মজুরের ক্ষেত্রে তারা বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন । শুধু এখানেই নয় বেসরকারি বিভিন্ন অফিসেও মজুরের ক্ষেত্রে বৈষম্যের শিকার হন নারীরা ।নগরীর খুলশী এলাকায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে গিয়েও দেখা যায় একই চিত্র । একজন আয়া ওয়ার্ড বয়ের চেয়ে প্রায় ২ হাজার টাকা বেতন কম পায়। শ্রম অনুযায়ী বেতন কম ও ন্যায্য সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হন। নারীরাও বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রপ্তানিকৃত গার্মেন্টসে প্রায় ৩৫ লাখ নারী কর্মী থাকলেও সেলাই আর অপারেটরের কাজ ছাড়া বড় কোন পদে তাদের পদোন্নিত    হয় না। কিছু গার্মেন্টসে মাতৃত্বকালীন ছুটি দিলেও তা ছয় মাসের জায়গায় তিন মাস দেওয়া হয় ।এজন্য দেশের নারী শ্রমিক সংগঠনগুলো আন্দোলন করে যাচ্ছে ।নারীদের কাছ থেকে সস্হা মূল্যে শ্রম আদায় করা যায়। সেজন্যই তারা এমন বৈষম্য করে যাচ্ছে বলেন একজন বিশেষ কর্মকর্তা  ।বিষয়টি রাষ্ট্রীয়ভাবে তদারকির প্রয়োজন তা না হলে নারী ও পুরুষ শ্রমিকের বৈষম্য কমবে না।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply