বাংলাদেশ, শুক্রবার, ৩০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিলেট বৌদ্ধ সমিতি প্রতিষ্ঠিত ঐতিহ্যবাহী সিলেট বৌদ্ধ বিহারে শুভ কঠিন চীবর দান সম্পন্ন

আত্মশুদ্ধি,আত্ম সংযম,আত্ম প্রতীতির মাঙ্গলিক দীপ জ্বেলে প্রতিবছর আমাদের জীবনাঙ্গনে ফিরে আসে তিনমাস বর্ষাব্রত অধিষ্ঠান।পূজনীয় ভিক্ষু সংঘ ও সদ্ধর্মপ্রাণ উপাসক-উপাসিকারা এই তিনমাস শীল,সমাধি,প্রজ্ঞার অনুশীলনে আত্ম নিবেদন করে পরিস্নাত হয়।তিনমাস বর্ষাব্রত অধিষ্ঠানের আনন্দধারায় ফিরে আসে ‘শুভ প্রবারণা’।প্রবারণার অম্লান চেতনায় বর্ষ পরিক্রমায় ফিরে আসে বৌদ্ধদের জাতীয় ধর্মীয় অনুষ্ঠান ‘দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব’।প্রতিটি বৌদ্ধ পরিবার উৎফুল্ল চিত্তে অপেক্ষা করেন তাদের প্রতিক্ষিত কঠিন চীবর দান দেওয়ার জন্য।এ উৎসবে শ্রদ্ধার অর্ঘ্য মিশ্রিত নৈবেদ্য সাজিয়ে দান কর্মের অনুরাগে মেতে উঠে সকল বৌদ্ধ নর-নারীবৃন্দ,মুখরিত হয় বৌদ্ধ জনপদ ও জনারণ্য।
বর্ষ পরিক্রমায় শুভ কঠিন চীবর দানোৎসব আমাদের দ্বারপ্রান্তে ফিরে এলেও কোভিড-১৯ তথা ‘করোনা’ মহামারী’র প্রাদূর্ভাবে সারাবিশ্ব আজ শংকিত, আতংকিত,ভীত,সন্ত্রস্ত। ‘করোনা’ মহামারীর করাল গ্রাসে ইতোমধ্যে লক্ষ লক্ষ মানুষের প্রাণ সংহার হয়েছে। আমরা হারিয়েছি অনেক প্রিয়জন,আত্মীয়-স্বজনকে।অনেক প্রিয়জন এখনও হাসপাতালের বেডে শুয়ে আর্তনাদ করছে।বিশ্বব্যাপী ‘করোনা’র সর্বগ্রাসী আক্রমণে জন জীবন এখন বিপর্যস্ত।ব্যবসা-বানিজ্য,চাকুরী,অর্থনীতি,শিক্ষা,সবকিছু স্হবির হয়ে আছে।কোথাও শান্তি নেই,স্বস্তি নেই,আজ মানবতা বিপন্ন।পৃথিবীর সবুজ প্রান্তর ‘করোনা’র অদৃশ্য অশুভ ছায়ায় ক্ষত-বিক্ষত।
বৈশ্বিক ‘করোনা’ মহামারীর কারণে-গত ১৬ অক্টোবর ২০২০ শুক্রবার,সিলেট মহানগরীর প্রাণকেন্দ্রে অবস্হিত শতাব্দীর ঐতিহ্যবাহী সিলেট বৌদ্ধ বিহারের অনুষ্ঠিতব্য দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসবের সকল ধর্মীয় কার্যক্রম সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২ টার মধ্যে সীমিত পরিসরে,সরকারী নির্দেশনা মোতাবেক,স্বাস্হ্য বিধি মেনে সুসম্পন্ন করা হয়।
উক্ত চীবর দানে সভাপ্রতি ছিলেন সিলেট বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রীমৎ সংঘানন্দ থের। প্রধান অতিথি ছিলেন জৈষ্টপুরা কেন্দ্রীয় বৈশালী বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ শ্রদ্ধানন্দ থের। বিশেষ অতিথি ছিলেন শ্রীমৎ বুদ্ধকুর্তি থের, রতনানন্দ থের, সিলেট বৌদ্ধ বিহারের আনন্দ ভিক্ষু, শ্রীমৎ সংঘপ্রিয় শ্রামন, প্রধান ধর্মদেশক ছিলেন রাঙ্গুনিয়া চট্টগ্রামে প্রতিষ্ঠিত মহাবংশ আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক, বার্মা হতে বিদর্শন ভাবনায় প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত, বিদর্শনাচার্য্য ভদন্ত মহাবংশ ভিক্ষু।
অনুষ্ঠানের শুভ উদ্ভোধন করেন সিলেট বৌদ্ধ সমিতির সভাপতি অরুন বিকাশ চাকমা, স্বাগত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহবায়ক লিটন বড়ুয়া। পঞ্চশীল প্রার্থনা করেন সিলেট বৌদ্ধ সমিতির উপদেষ্টা তপন কান্তি বড়ুয়া মান্না।
সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় করেন সিলেট বৌদ্ধ সমিতির সাধারণ সম্পাদক উৎফল বড়ুয়া।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply