বাংলাদেশ, শনিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দিনমজুরের পেলেট থেকে যেন উধাও হয়ে যাচ্ছে সবজি ভাগ্যে জুটেছে শুধু পাতলা ডাল আর ভাত জুটছে না আলু ভর্তাও চলমান বাজারে ৫০ টাকার নিচে যেন কিছুই নেই আগের সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে আরো বেড়ে গেছে সবজির দাম | নগরীর বিভিন্ন বাজারে খোঁজ নিয়ে দেখা যায় সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি আলুতে পাঁচ টাকা বেড়ে হয়েছে ৪৫ টাকা প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা প্রতি কেজি ।সিম বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১৪০ টাকা ।টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি ,বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজি ,বেগুন প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা ,

শসা কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা, ঝিঙ্গা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা ,ঢেরশ কেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা, লাউ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ টাকা ,কাঁচা কলা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকা, ফুলকপি প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা ,গাজর প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা ,করোল্লা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা ,পিঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ৯৫ টাকা ,মসুরের ডাল প্রতি কেজি ১০০ টাকা ,সোয়াবিন তেল প্রতি লিটার ১০৫ টাকা, ডিম এক ডর্জন ১১৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে সবজি বিক্রেতারা জানান বন্যার কারণে অনেক সবজির ফসল নষ্ট হয়ে গেছে তাই

চাহিদা মোতাবেক সবজি আসছে না যার ফলে বেড়ে গেছে সবজির দাম। ক্রেতাদের জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানান করোনা মহামারীতে অনেকে চাকরি হারিয়েছে অনেকে শহরে পরিবার চালাতে না পেরে বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়েছেন এই সময়টাকে পুঁজি করে ব্যবসায়ীরা যার যার মত

অতিরিক্ত মুনাফা করে যাচ্ছেন আমাদের দেশে শুধুমাত্র রমজান এলেই সবজির বাজারে অভিযান চালানো হয় অথচ সামান্য বৃষ্টি হলেই ব্যবসায়ীরা পরিকল্পিতভাবে দাম বাড়িয়ে দেয় এটি প্রশাসনকে অবশ্যই দেখতে হবে ।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply