বাংলাদেশ, শনিবার, ৩১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুতে ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ এর-আমীর ও মহাসচিব এর-শোক প্রকাশ

..
 দেশের কওমি মাদ্রাসা সমূহের শীর্ষ সংগঠন আল হাইয়াতুল উলিয়া লিল জামিয়াতিল কওমিয়া, বেফাকুল মাদারিস, বাংলাদেশ ও হেফাজত-ই-ইসলামের আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর ইন্তেকালে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন।
রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার ইন্তেকালের সংবাদে ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ এর আমীর মুফতি ইমরান ইসলামাবাদী মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা এবং শোকসন্তপ্ত পরিবার ও গুণগ্রাহীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। মরহুমের বয়স হয়েছিল ১০৪ বছর।
ইত্তেহাদুল মুসলিমীন বাংলাদেশ এর মহাসচিব এডভোকেট এম.এ. ঈসা মাহমুদ হাসেমী শোকবার্তায় প্রয়াত আল্লামা শফীকে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় আলেমে-দ্বীন হিসেবে উল্লেখ করেন এবং আল্লামা আহমদ শফীর জীবনী নিয়ে থিসিস,(এমফিল) গবেষনাগার, ইতিহাসের স্বর্ণালী পাতায় অন্তর্ভুক্ত করার আহবান জানান।
উক্ত সংগঠনের আমীর ইসলামাবাদী বলেন, আল্লামা আহমদ শফী দীর্ঘ তিন দশকেরও বেশি সময় দেশের কওমি মাদ্রাসাগুলোর মধ্যে প্রাচীন ও বৃহত্তম চট্টগ্রামের হাটহাজারী দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম মাদ্রাসার মহাপরিচালক হিসেবে কওমি মাদ্রাসাগুলোর খিদমাত আঞ্জাম দিয়েছেন। দেশে ইসলামী শিক্ষার বিস্তার ও স্বীকৃতি অর্জনে তার ভূমিকা অনস্বীকার্য।
চট্টগ্রামের রাঙ্গনিয়া উপজেলার পাখিয়ারটিলা গ্রামে ১৯১৬ সালে জন্মগ্রহণকারী শাহ আহমদ শফী মৃত্যুকালে দুই ছেলে, তিন মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply