বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২৭শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাফল্য প্রত্যয়ী শিল্পী রায়হান সুলতানা নিহা

আবছার উদ্দিন অলি

চট্টগ্রামের উদীয়মান কন্ঠশিল্পীদের একজন রায়হান সুলতানা নিহা। যাকে
সংগীতের সুরমূর্চ্ছণায় ও রাগের স্বরলিপিতে খুঁজে পাওয়া যায়। বর্তমানে
বাংলাদেশ বেতার, টেলিভিশন, মঞ্চ ও নাটকের প্লে-ব্যাক-এ সংগীত পরিবেশন
করেন নিয়মিত। নিহা চলচ্চিত্রে থিম সং করেছেন। নিহা’র সুরেলা কন্ঠ ও
গায়কী উপস্থাপনায় মুগ্ধ করে শ্রোতাদের। সংগীতে আসা কিভাবে জানতে
চাইলে বলেন- যখন থেকে হাটি-হাটি পা-পা তখন থেকেই সা থেকে সা, মানে
সেই ছোট থেকে সা-রে-গা-মা শুরু করি এভাবেই গানের ভুবনে পদার্পন।
সংগীতের হাতে খড়ি কার কাছে? ওস্তাত মিহির লালা, শহিদুজ্জামান, আবদুস
শুক্কুর, মোঃ নাছির, সনজিত আচার্য্য, আলমগীর আলাউদ্দিন, ইউনুচ বাঙ্গালী,
আলাউদ্দিন তাহের, যুগলুল পাশা, শামসুল হায়দার তুষার, মিলন আচার্য্য সহ
অনেকের কাছে আমি গান শিখেছি। নানান প্রতিকুলতার বাঁধা পেরিয়ে
প্রতিভাবান জনপ্রিয় শিল্পীদের সারিতে আবদ্ধ হতে পারেনি। মিহির লালা’র
হাতেই আমার গানের খাতার প্রথম স্বরলিপি শেখা। গানের উৎসাহ পেয়েছেন
কার কাছে? আমি সংগীত জীবনে সবচেয়ে বেশি উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা
পেয়েছি যার কাছে তিনি আমার মা। আমার মা যেন গানের ভুবনে বিচরণের
স্বপ্নদ্রষ্টা। এখনো তিনি সর্বদা আমাকে উৎসাহ যোগাচ্ছেন, আমার
ফ্যামিলি’র সবাই সংগীত সাধনায় সহযোগিতা করেছেন। এছাড়াও যারা
বিভিন্ন সময়ে সহযোগিতা করেছেন তাদের কাছে আমি সারা জীবনের জন্য
কৃতজ্ঞ। কি ধরনের গান করতে বেশি পছন্দ করেন? আমি যেহেতু চট্টগ্রামের
মেয়ে সুতরাং চট্টগ্রামের কিংবদন্তী আঞ্চলিক গানের সম্ম্রাজ্ঞী প্রয়াত
শেফালী ঘোষের গান পছন্দ করি। স্বরলিপি থেকে যখন গানের কলি কন্ঠে নিয়েছি
তখন থেকেই হারানো দিনের গানকে কন্ঠে বসানোর চেষ্টা করতাম, পুরোনো
দিনের গান আমাকে খুব বেশি প্রভাবিত করে তাই হারানো দিনের গানকেই
প্রধান্য দিই বেশি, সেই সুবাদে বর্তমানে সুরের তীর চিহ্নটা হারানো
দিনের গানের দিকেই। প্রিয় গীতিকারের তালিকায় রছেয়েন- এস.এম.খুরশীদ,
সৈয়দ মহিউদ্দিন, সনজিত আচার্য, লিয়াকত হোসেন খোকন, ফারুক হাসান
ও আবছার উদ্দিন অলি। প্রিয় সুরকার সাইফুদ্দীন মাহমুদ খান, আলমগীর
আলাউদ্দিন, সৈয়দুল হক, বানী কুমার চৌধুরী। প্রিয়শিল্পী সাবিনা
ইয়াসমিন, কনকচাঁপা, আবদুল হাদী, তপন চৌধুরী, এন্ড্রু কিশোর, রুনা
লায়লা। এ্যালবাম নিয়ে কিছু ভাবছেন? রশিক নাগর নামে আমার একটি
এ্যালবাম বের হয়েছে। এছাড়াও আরো দুইটি এ্যালবামের কাজ চলছে। সবে মাত্র
পথচলা শুরু করেছি, অনেকটা পথ পাড়ি দিতে হবে আমাকে। এখন কি নিয়ে
ব্যস্ত? নতুন এ্যালবামের কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছি। এছাড়াও একটি মিউজিক
ভিডিও’র কাজ চলছে। বর্তমানে চাটগাঁইয়্যা নওজোয়ানের সহ মহিলা
বিষয়ক সম্পাদক, চট্টগ্রাম মঞ্চ শিল্পী সংস্থার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন
করছি। এছাড়াও বাংলাদেশ বেতার বান্দরবানের তালিকাভুক্ত সংগীত শিল্পী।
চট্টগ্রাম বেতারে সংগীত শিক্ষার আসরে গান গাওয়ার মাধ্যমে স্বপ্ন দেখি
শিল্পী হওয়ার। এছাড়াও জালাল আহমেদ ও শিপনের কাছে আমি গীটার ও বেহালা
শিখছি। আপনার স্বপ্ন সম্পকে যদি বলতেন? মানুষ বেঁচে থাকার অনুপ্রেরণা
যোগায় তার স্বপ্ন, আমিও তার আলাদা নই আমার স্বপ্ন গানের ভুবণে

নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা। হিউম্যান রাইটস্ধসঢ়; এ্যাওয়ার্ড’১৭, দৈনিক
নোয়াখালী প্রতিদিন সম্মাননা, সোনার বাংলা সাংস্কৃতিক ফাউন্ডেশন,
বাংলাদেশ মেধা বিকাশ সোসাইটি, নেলসন ম্যান্ডেলা গোল্ড মেডেল, বিজয়
দিবস সম্মাননা, গ্যামার মিডিয়া সম্মাননা, ঢাকা সাংস্কৃতিক
সংগঠন সম্মাননা, ঢাকা সামাজিক সাংস্কৃতিক শিল্পী গোষ্ঠী সম্মাননা,
আনন্দ বিনোদন এ্যাওয়ার্ড সহ আরো অসংখ্য সংগীতে বিশেষ অবদানের জন্য
সম্মাননা পেয়েছেন। একান্ত আপন? পৃথিবীটা খুব অল্প সময়ের এখানে সবাই
সবার আপন কিন্তু একান্ত আপন বরতে আমার গর্ভধারিনী মা ছাড়া আর কেউ
নেই। বর্তমান সংগীতের অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে রায়হান সুলতানা
নিহা বলেন- আগের তুলনায় সংগীতের অবস্থা খুবই ভাল। কারণ বর্তমানে কিছু
গীতিকার, সুরকার ও সংগীত শিল্পী মেধা ও প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে সংগীতে
অসাধারণ কিছু নতুন মাত্রা যোগ করেছে যা অবশ্যই প্রসংশার দাবিদার।
চট্টগ্রামে যারা সুস্থধারার সংগীত পরিবেশন করার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে
যাচ্ছে যেমন- চাটগাঁইয়্যা নওজোয়ান, চট্টগ্রাম যন্ত্রশিল্পী সংস্থা,
চট্টগ্রাম মঞ্চ সংগীত শিল্পী সংস্থা, চট্টগ্রাম সাউন্ড সিষ্টেম ব্যবসায়
কল্যাণ সংস্থা, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ত¡, সাংস্কৃতিককর্মীসহ সংগীত
প্রেমী সবাইকে আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ইতিমধ্যে ভারত,
বাহরাইন, দুবাই, মালয়েশিয়া সহ বিভিন্ন দেশে সংগীত পরিবেশন করেছি।
পরিশেষে পাঠকদের উদ্দেশ্যে করে রায়হান সুলতানা নিহা বলেন- “দেশীয়
সাংস্কৃতিক ধারণ করুন হৃদয়ে” এই ধারা অব্যাহত রেখে আমি এগিয়ে
যেতে চাই আর শুনেছি যন্ত্রনা কাত হৃদয়ে সংগীত ঔষধের মত কাজ করে তাই
আমি যেন হারানো দিনের গান গেয়ে সবার হৃদয়ে ঠাই করে নিতে পারি,
সকলেই আমার জন্য দোয়া করবেন।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply