বাংলাদেশ, রবিবার, ৯ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মা ও শিশু হাসপাতালে ১৫টি বেড ক্রয়ে অনুদানের চেক দিলো গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে

গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে এর পক্ষে মা ও শিশু হাসপাতালে ১৫টি বেড ক্রয়ে অনুদানের চেক হস্তান্তর অনুষ্টানে বক্তারা বলেন, গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে চট্টগ্রামবাসীর কল্যানে সবসময় পাশে থেকেছেন। সম্প্রতি এই সংগঠনের পক্ষ হতে গরিব অসহায় মানুষদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রমেও ভুয়সী প্রশংসা যোগ্য।

গত ১১ জুলাই শনিবার সকালে চট্টগ্রাম ক্লাবে যুক্তরাজ্যর জনপ্রিয় সংগঠন গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে কর্তৃক চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের জন্য ১৫টি বেড ক্রয়ের জন্য অনুদানের চেক হস্তান্তর অনুষ্টানে গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে’র পক্ষে সাউর্দার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভিসি ও হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সদস্য প্রকৌশলী এম আলী আশরাফ এসব কথা বলেন।

এই সময় তিনি ১৫টি বেড ক্রয়ের জন গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে’র অনুদানের একটি চেক হস্তান্তর করেন হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সহ সভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেনের নিকট। এতে উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের ট্রেজারার রেজাউল করিম আজাদ, প্রিন্সিপাল ডক্টর সানাউল্লাহ, ডাক্তার অলক নন্দী সহ পরিচালনা পরিষদের বেশ কিছু সদস্য।
সংগঠনের সহ সভাপতি জনাব ছৈয়দ মোর্শেদ হোসেন তাঁর বক্তব্য বলেন, গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে এর প্রতি কৃতজ্ঞতা। গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে’ এবং সম্মানিত প্রবাসী চট্টগ্রামবাসীদের মা ও শিশু হাসপাতালের উন্নয়নে পাশে থাকার আহ্বান এবং উদার হস্তে এগিয়ে আসার আহবান জানাব।
এদিকে গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউ’কে’ নেতৃবৃন্দ সংবাদপত্রে এক যুক্ত প্রেস বিবৃতি দেন এসোসিয়েশন সভাপতি ব্যারিষ্টার মনোয়ার হোসেন, কাউন্সিলর ফিরোজ গনি, কবিড ১৯ ত্রাণ বিতরণ কমিটির মীর রাশেদ আহমেদ, আরশাদ মালেক, হাসান আনোয়ার, রাজ্জাকুল হায়দার বাপ্পী ও ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আলী রেজা।
তাঁরা বলেন, সাম্প্রতিক ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল স্বাস্থ সেবায় গুরুত্বপপূর্ণ ভুমিকা পালন করে আসছেন, যা নিসন্দেহে প্রশংসাযোগ্য। নেতৃবৃন্দ মা ও শিশু হাসপাতালের উন্নয়নে ও বিভিন্ন প্রকল্পে ভবিষ্যতেও সাধ্যমত সহযোগীতা অব্যাহত রাখার দৃঢ় ইচ্ছা ব্যক্ত করেন ।
গ্রেটার চিটাগাং এসোসিয়েশন ইউকে এর সভাপতি ব্যারিস্টার মনোয়ার হোসেন বলেন, “যুক্তরাজ্যে প্রবাসী চট্টগ্রামবাসীরা চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের জন্য সবসময় পাশে থাকবে। ত্রাণ কমিটির সমন্বয়কারী ব্যারিস্টার মোহাম্মদ আলী রেজা বলেন, “চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের জন্য কবিড ১৯ চিকিৎসা সহায়ক প্রয়োজনীয় কিছু যন্ত্রপাতি ইউকে তে অবস্থিত কিছু প্রস্তুতকারী প্রতিষ্টান হতে বিনামূল্যে সংগ্রহের জন্য সাধ্যমত চেষ্টা চালিয়ে যচ্ছি। আশা করি সফলকাম হবো।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply