বাংলাদেশ, বুধবার, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আনোয়ারায় ঈদের দিনও রোগী পরিবহণ সেবা চালু রাখবেন এমএ রশিদ

দুনিয়ার এই করোনাকালে পরিবহণ মহা সংকটে আনোয়ারায় রোগীরা পরিবহণ  সেবা  প্রাপ্তি এখনো অব্যাহত আছে।মুসলিমের বড় ধর্মীয় উৎসব কাল ঈদের দিনও সেবা পাবেন বলে নিশ্চিত করছেন এই সেবা প্রদানকারী ব্যাক্তিত্ব আওয়ামী লীগ নেতা এমএ রশিদ।ইতিপূর্বে ঝড়, বৃষ্টি, তুফান, মহাবিপদ সংকেত, সবে বরাত ও সবে কদর দিনে ও রাতে এই সেবা চালু ছিল। করোনায় যতদিন সংকট থাকবে ততদিন তিনিও এই সেবায় নিবৃত থাকবেন এই কামনা এমএ রশিদের।

গতকাল শনিবার প্রতিদিনকার মতো  বোয়ালিয়ার ডেলিভারি রোগীকে চট্টগ্রাম মেডিকেলে নিয়ে যেতে হয়।ওই ডেলিভারী রোগীর একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়।মা ও ছেলে দুইজন এখন সুষ্ঠু আছেন বলে সংশ্লিষ্ট সু্ত্রে জানা গেছে।স্হানীয় বোয়ালিয়া গ্রামের সিরাজুল মোস্তফা ও শেখ মোহাম্মদ

এই মহৎ কাজের সমন্বয় করেন।

আমাদের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ডেলিভারী রোগীরা আজ অবধি ২৫জন ছেলে ও ১৫জন মেয়ের জন্ম দেন।এ ছাড়াও ক্যান্সার, হার্ট, ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন প্রকার গুরুতর রোগীরাও পরিবহণ সেবা পান।এইসব রোগীরা ভিন্ন ভিন্ন বয়স ও ভিন্ন ভিন্ন পাড়া – গ্রামের।এ যাবৎ ১৮১জন রোগী পরিবহণ সেবা পান বলে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে, লকডাউনের শুরুর দিকে এমএ রশিদ গরীব ও অসহায় মানুষদের ত্রাণ বিতরণ, ঈদ ও ইফতার সামগ্রী প্রদান, স্বাস্হ্য সুরক্ষা বিলিসহ গোপনে ও প্রকাশ্য মানুষের পাশে থাকেন।এমনকি এই জনপদে করোনায় কারো মৃত্যু হলে লাশ দাফনের সুবিধার্থে তিনি ৭০ লাখ টাকার পৈত্রিক জমি দানের ঘোষনাও দেন।যা গোটা আনোয়ারা জুড়ে আলোচনা চলে এখনো চলছে।

প্রসংগত,   এমএ রশিদ এই জনপদের মহান নেতা মরহুম আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর একনিষ্ট ভক্ত ও কর্মী।বর্তমানে তিনি আনোয়ারা থানা আওয়ামী লীগের সদস্য।এ ছাড়াও ঢাকাস্হ চট্টগ্রাম সমিতির আজীবন সদস্যসহ বহু সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে বিজড়িত তিনি ।

 

 

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply