বাংলাদেশ, রবিবার, ৫ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২২শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামের ফিসারীঘাটে মদের আসর মাতালের উপদ্রুপ থেকে রেহাই চায় এলাকাবাসী কিন্তু বন্ধ করবে কে?

 শর্মিলা দাশ ও সাইফুল ইসলাম

চট্টগ্রামের ফিসারীঘাটে মদের আসর বসে হরদম।সকাল থেকে গভীর রাত অবধি এখানে মাতালের উপদ্রুপ লেগেই আছে।এলাকাবাসী এসব উপদ্রুপ থেকে বাঁচার জন্য নানানভাবে প্রচেষ্ঠা চালালেও বন্ধ হচ্ছে না এটি।অভিযোগ রয়েছে মাদক নিয়ণ্ত্রণ অধিদপ্তরসহ কয়েকজন দূর্ণীতিবাজ কর্মকর্তার আশ্রয়ে নিয়ম নীতি তোয়াক্কা না করেই এই আসর চলছে।

জানা গেছে, এখানে অনুপ নামক জনৈক ব্যাক্তির মদের মহাল আছে।ওই মহালে কোন আইন কানুন মানা হয় না। স্হানীয় মুছল্লি ও পথচারীরা মাতালের কবলে পড়ে হরখামেশা নিগৃহিত হয়।রাত যত গভীর হয় মাতালের সমাগম এখানে ততই বাড়ে।মাতালদের মধ্যে করোনা ভাইরাসের কথাও মাথায় কাজ করেনা । অফিস আদালাত, মেলা, বিয়ে – সাদী ও নির্বাচন স্হগিত হলেও এখানে মাতালের সমাগম বন্ধ হচ্ছে না।

শুক্রবারেও এখানে মদ বেচাবিক্রি হয়।খবর নিয়ে জানা গেছে সাগর দাশ নামক এক ব্যাক্তি অনুপের পক্ষ নিয়ে এসব কাজ চালিয়ে থাকে।এই বিষয়ে সাগর দাশের মুঠোফোনে কথা বললে সে মদের আসরের কথা স্বীকার করে বলেন- আমি এখানে চাকুরী করি।অনুপ এটার মালিক।তার সাথে কথা বলতে চাইলে সে বলে তার সাথে কথা বলা যাবে না।মোবাইল নাম্বারও দেয়া যাবে না।সাগর দাশ এই বিষয়ে মাদক নিয়ণ্ত্রণ অধিদপ্তরের লোকজনের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন। শুক্রবার ও গভীর রাত পর্যন্ত চালানোর কথা মাদক নিয়ণ্ত্রণ অধিদপ্তরের লোকজনও জানে।

আমাদের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এই মদের মহালের মালিক একজন মাদক ব্যবসায়ী।ফিসারীঘাট ও ফিরিঙ্গি বাজারে একই রংগের কয়েকটি  তার বিল্ডিং রয়েছে। স্হগিত সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে এবার সে কাউন্সিলর প্রার্থী ছিলেন।গেলবারও প্রার্থী ছিলেন তিনি।এই অনুপম প্রার্থী হবার পর স্হানীয় সচেতন মহল তার বিরুদ্ধে পোস্টার ছাপিয়ে বিভিন্ন জায়গায় সাঁটিয়ে দেয় ।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply