বাংলাদেশ, রবিবার, ৯ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ক্যান্সার আক্রান্ত রুবেলকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

 

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার হাবিলাসদ্বীপ গ্রামের বিশিষ্ট সমাজসেবক শ্রী রবীন্দ্র লাল ঘোষ ও অনিমা ঘোষের একমাত্র ছেলে রুবেল ঘোষ (২৬) ক্যান্সারে আক্রান্ত। বর্তমানে চট্টগ্রাম শহরের পাঁচলাইশস্থ ফেয়ার হেলথ ক্লিনিকে ভারতের হায়দ্রাবাদের যশোদা হাসপাতালের নির্দেশনা মোতাবেক তার কেমোথ্যারাপি চলছে। চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের অসহায় পিতা রবীন্দ্র ঘোষ এখন নিঃস্ব।
এক বছর আগে রুবেলের শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়ার পর পিতা রবীন্দ্র ঘোষ তার জায়গা-জমি বিক্রি করে যোগাড় করা যাবতীয় অর্থ-কড়ি ও বন্ধু-বান্ধবের সহায়তায় ছেলে রুবেলকে ভারতের হায়দ্রাবাদের যশোদা হাসপাতালে প্রখ্যাত ক্যানসার বিশেষজ্ঞ ডাঃ শচীন এর তত্ত্বাবধানে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন এবং সফলভাবে তার অপারেশন সম্পন্ন হয়। কিন্তু দীর্ঘমেয়াদী চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করতে গিয়ে তিনি নিঃস্ব হয়ে পড়েন। ইতোমধ্যে তার জন্য ২০ লক্ষ টাকার উপরে খরচ হয়ে যায়। বর্তমানে তার কেমোথ্যারাপির টাকা যোগাড় করতে পিতা রবীন্র ঘোষকে হিমশিম খেতে হচ্ছে।
সম্প্রতি তার শরীরে নতুন করে আবার জটিলতা তৈরি হয়। তাকে তার চিকিৎসাস্থল ভারতের যশোদা হাসপাতালে পাঠানো খুব দরকার হয়ে পড়েছে। কিন্তু তাকে ভারতে পাঠানোর মতো আর্থিক ক্ষমতা তার পিতার এখন নেই। সম্ভ্রান্ত পরিবারের রবীন্দ্র ঘোষ কখনও কল্পনাও করে নি তাঁর জীবনে এ দুর্দশা আসবে। তাঁর একমাত্র ছেলের প্রাণ বাঁচাতে সহৃদয়বান ব্যক্তিবর্গের কাছে আর্থিক সাহায্যের জন্য তিনি আকুল আবেদন জানিয়েছেন।

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না ও বন্ধু…’। কিংবদন্তী শিল্পী ভূপেন হাজারিকার বিখ্যাত গানের মর্মার্থ হৃদয়ে ধারণ করা হাবিলাসদ্বীপ রামকৃষ্ণ সেবাশ্রমের সদস্যরা সংগঠনের উদ্যমী, প্রাণোচ্ছল ও তরুণ সদস্য ক্যান্সার আক্রান্ত রুবেল ঘোষের চিকিৎসার জন্য তহবিল সংগ্রহ করছে। রুবেলের জন্য হাবিলাসদ্বীপের অনেক মানবতাবাদী তরুণ এবং সংগঠন তহবিল সংগ্রহের কাজ করছেন।

ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের সব আঞ্চলিক পত্রিকা ও অনলাইন পত্রিকায় রুবেলের চিকিৎসা সহায়তার জন্য আবেদনের সংবাদটি প্রকাশিত হয়েছে।

এই পৃথিবীতে সবসময়ই মানুষের বিপদে মানুষই এগিয়ে আসছে। সমস্ত সংকট থেকে মানুষ মানুষকে উদ্ধার করছে। মানুষের জন্য মানুষ করে মানুষকে যেমন মানুষ বাঁচিয়ে রাখছে এবং মানুষের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেয়ার চেষ্টা করছে ঠিক তেমনি মানুষের জন্য সেবার হাত প্রসারিত করে মানুষই মহীয়ান হয়েছে বা হচ্ছে।

আবার মানুষের জন্য মানুষ কিছু করে যে আনন্দ ও সন্তুষ্টি খুঁজে পায়, তার স্বাদ বা তৃপ্তি অন্য কিছুর সাথে তুলনীয় নয়। আসুন, একটি তাজা প্রাণ রুবেলের জন্য কিছু করি।

রুবেলের জীবন আজ সংকটাপন্ন। তাঁর মাতা ও পিতা একমাত্র ছেলের সংকটাপন্ন জীবনের পাশে দাঁড়িয়ে অসহায়। তাঁর বাবা-মার অনবরত চোখের জল ঝরছে, মর্ম বেদনায় কাতরাচ্ছে, মহান স্রষ্টাপাণে আহাজারি করে সন্তানের জীবন ভিক্ষা করছে এবং নিজেদের বেঁচে থাকাকে অনর্থক মনে করছে। আমরা এত মানুষ আছি, কিছু কি করতে পারি না রুবেলের জন্য! সামান্য অর্থ কি সহায়তা করতে পারি না! অর্থের অভাবের কারণে রুবেল এভাবে আমাদের মাঝখান থেকে হারিয়ে যেতে পারে না। আসুন, যে যেভাবে পারি, রুবেলের পাশে দাঁড়াই।

ব্যক্তিপর্যায়ে ১০০/২০০/৩০০/৪০০/৫০০/১০০০
টাকা একটি জীবন বাঁচানোর জন্য আমরা সাহায্য করতেই পারি, টাকাটা খুব সামান্য কিন্তু অর্জনটা হবে বিশাল যা অমূল্য এবং শ্রেষ্ঠ। এতে রুবেলের মুখে হাসি ফুটবে এবং তাঁর বাবা-মা ফিরে পাবে একমাত্র অবলম্বনকে। সমাজ তথা জাতি পাবে সম্ভাবনাময় এক তরুনকে।

কবির ভাষায়, ‘হিন্দু না ওরা মুসলিম? ওই জিজ্ঞাসে কোন জন? কাণ্ডারি! বল, ডুবিছে মানুষ, সন্তান মোর মার।’ -এই অমৃত ভাষাকে সামনে রেখে জাতি-ধর্ম-শ্রেণি-দল-মত নির্বিশেষে ঐক্যের দ্যোতনায়, মানবতার চেতনায় রুবেলের পাশে দাঁড়ানোর বিনীত আবেদন জানাচ্ছি।

‘সকলের তরে সকলে আমরা, প্রত্যেকে মোরা পরের তরে।’ – কবির এই বোধ অহেতুক বাগারম্ভর নয় অথবা ছন্দোবদ্ধ কোন নিছক কথামালা নয়। এই কথামালা জীবনের বোধ, সৃষ্টিকে বাঁচিয়ে রাখার বোধ, মানবতার পরম এবং চরম বোধ। আসুন, আমরা রুবেলের জন্য কিছু করে মানবিকতার হাজার-কোটি দৃষ্টান্তের মধ্যে আরেকটি দৃষ্টান্ত যোগ করি।

‘জীবে প্রেম করে যেইজন, সেইজন সেবিছে ঈশ্বর।’- মনীষীর এই শ্রেষ্ঠ বাণীকে সামনে রেখে বলব, প্রত্যেক ধর্ম মানবতাকে সর্ব উর্ধ্বে স্থান দিয়েছে এবং মানুষের জন্য কিছু করাকে সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। তাই আসুন, মানবতার জন্য কিছু করার কাতারে নিজেদের সামিল করি এবং মানব জীবনের সার্থকতা খুঁজে নিই। আমাদের বিশ্বাস, আমাদের প্রত্যেকের বিন্দু বিন্দু অবদানে রুবেলের জন্য গঠিত চিকিৎসা সহায়তা তহবিল পরিপূর্ণ হবে এবং রুবেলের যথাযথ চিকিৎসা চলমান থাকবে।
পরিশেষে আবেদন ও প্রার্থনা, চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের সকল মানবতাবাদী সংগঠন, বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ এবং সর্বশ্রেণির শ্রদ্ধাভাজন ব্যক্তিবিশেষ যারা মানবতার জন্য কাজ করছেন সকলে এক টগবগে তরুণ বাবা-মার অন্ধের যষ্টি ক্যান্সার আক্রান্ত রুবেলের পাশে দাঁড়ান।

ক্যান্সার আক্রান্ত রুবেলের জন্য সাহায্য পাঠাতে পারেন
———————————————-
রবীন্দ্র লাল ঘোষ
হিসাব নং ০৭৭৩৪০০০৩৫৮
স্টান্ডার্ড ব্যাংক, চাক্তাই শাখা, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ।
অথবা,
অনিমা ঘোষ
হিসাব নং ০৭৭৩৪০০০৩৭৯
স্টান্ডার্ড ব্যাংক, চাক্তাই শাখা, চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ।
————————————
বিকাশে সাহায্য পাঠাতে পারেন:
——————————–
রুবেলের কাকা স্বপন ঘোষের মোবাইল নাম্বারে ০১৮৩৯৪৩৩৫৯৬(ইশধংয

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply