বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ৭ই এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২৪শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বন্ধ হলো ‘ভালোবাসার স্মৃতিস্তম্ভ’ বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম তাজমহল

  শেষমেষ  ভয়াবহ   করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে সতর্কতা হিসেবে আগ্রার তাজমহল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আজ ।ফলে  কোনো দর্শনার্থী তাজমহলসহ ভারতের পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে আর প্রবেশ করতে পারছেন না।ভারতের সংস্কৃতিমন্ত্রীর বরাত  বলা হয়, ‘ভালোবাসার স্মৃতিস্তম্ভ’ খ্যাত এই স্থাপনা দেখতে প্রতিদিন এখানে  হাজার হাজার মানুষ আসত। বর্তমানে  করোনা ভাইরাসের এটি বন্ধ করা জরুরি ছিলো।

ভারতের সংস্কৃতিমন্ত্রী প্রাহ্লাদ প্যাটেল বলেন, এখানে থাকা ১৪৩টি স্মৃতিস্তম্ভ এবং জাদুঘর ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। এই সময় শেষে আবার পর্যালোচনা করে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তাজমহল বিশ্বের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় পর্যটন কেন্দ্র। এখানে প্রতিদিন প্রায় ৭০ হাজার মানুষ ভ্রমণ করতে আসে।তাজমহলভারতের উত্তর প্রদেশে আগ্রায় অবস্থিত একটি রাজকীয় সমাধি। মুঘল সম্রাট শাহজাহান তার স্ত্রী আরজুমান্দ বানু বেগম যিনি মুমতাজ মহল নামে পরিচিত তার স্মৃতির উদ্দেশে এই অপূর্ব সৌধটি নির্মাণ করেন। সৌধটি নির্মাণ শুরু হয়েছিল ১৬৩২ খ্রিষ্টাব্দে যা সম্পূর্ণ হয়েছিল প্রায় ১৬৫৩ খ্রিষ্টাব্দে। সৌধটির নকশা কে করেছিলেন এ প্রশ্নে অনেক বিতর্ক থাকলেও, এটি পরিষ্কার যে শিল্পনৈপুণ্যসম্পন্ন একদল নকশাকারক ও কারিগর সৌধটি নির্মাণ করেছিলেন যারা উস্তাদ আহমেদ লাহুরির সাথে ছিলেন, যিনি তাজমহলের মূল নকশাকারক হওয়ার প্রার্থীতায় এগিয়ে আছেন।

তাজমহলকে মুঘল স্থাপত্যশৈলীর একটি আকর্ষণীয় নিদর্শন হিসেবে মনে করা হয়, যার নির্মাণশৈলীতে পারস্যতুরস্ক, ভারতীয় এবং ইসলামী স্থাপত্যশিল্পের সম্মিলন ঘটানো হয়েছে। যদিও সাদা মার্বেলের গোম্বুজাকৃতি রাজকীয় সমাধীটিই বেশি সমাদৃত, তাজমহল আসলে সামগ্রিকভাবে একটি জটিল অখণ্ড স্থাপত্যও। এটি ১৯৮৩ সালে ইউনেস্কো বিশ্বঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত করে। বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের অন্যতম হলো এই তাজমহল। তখন একে বলা হয়েছিল ‘বিশ্ব ঐতিহ্যের সর্বজনীন প্রশংসিত শ্রেষ্ঠকর্ম।

এদিকে এখন পর্যন্ত ভারতে করোনা ভাইরাসে ১২৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন তিনজন।

 

 

 

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply