বাংলাদেশ, রবিবার, ৫ই জুলাই, ২০২০ ইং, ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে কারিতাস

চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন বস্তিতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে নগদ অর্থ ও হাইজিন কিট বিতরণে মাধ্যমে সহায়তায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছে কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চল। এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আজ১৬ ফেব্রুয়ারি কারিতাস মির্জারপুল ডেকোরেশন গলি’র বিভিন্ন বস্তিতে ক্ষতিগ্রস্ত ২৩১ পরিবারের প্রত্যেককে কাউন্সিলর মোঃ মোরশেদ আলমের উদ্বোধনের মাধ্যমে নগদ দশ হাজার টাকা এবং হাইজিন কিট (২টি ১০, ২০ লিটারের বালতি ও ১টি মগ, ২টি লাক্স ও ২টি হুইল সাবান, ১টি টুথপেস্ট ও ৪টি ব্রাশ এবং ৮টি ওআরএস) বিতরণ করা হয়।

এছাড়াও, গত ফেব্রুয়ারি ১৪ বেগম রাইচমিল (এসআরবি) বস্তিতে ক্ষতিগ্রস্ত ২০৪ পরিবারকে মাদারবাড়ি ২৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর গোলাম মোহাম্মদ জুবায়ের এবং সদরঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস এম ফজলুর রহমান ফারুকীর উপস্থিতিতে সমপরিমাণ অর্থ ও উপকরণ বিতরণ করে। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারসমূহের অংশগ্রহণে নগদ অর্থ ও উপকরণ বিতরণ পূর্ব পরিষ্কার-পরিছন্নতা, প্রাথমিক স্বাস্থ্যবিধি ও হাইজিন কিট ব্যবহার বিষয়ে ৪০টি সেশন পরিচালনা করা হয়।
বিতরণ কাজের শুরুতে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৮ শুলকবহর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ মোরশেদুল আলম, কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আর্চবিশপ মজেস এম কস্তা সিএসসি এবং কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক জেমস গোমেজসহ অন্যান্য অতিথিবর্গ। আলোচনা পর্বের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের আঞ্চলিক পরিচালক জেমস গোমেজ। তিনি বলেন, আগুনের ভয়াবতায় আপনার সব কিছুই হারিয়েছেন। প্রাপ্ত এ সহায়তা দিয়ে আপনারা পরিবারের জরুরি প্রয়োজন পূরণ করবেন এ প্রত্যাশা করছি। কাউন্সিলর মোরশেদ আলম বলেন, মানব সেবাই সবচাইতে বড় ধর্ম। কারিতাস বাংলাদেশ যে মানবতার সেবা নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে তা বলে বুঝানোর ভাষা আমার নেই। আমি আশাকরি ভবিষ্যতেও কারিতাস সারা বাংলাদেশে এ ধরনের মানবতার সেবায় এগিয়ে আসবে। আর্চবিশপ মজেস কস্তা বলেন, আপনাদের যে ক্ষতি হয়েছে তার তুলনায় আমাদের সহায়তা খুবই কম এবং এ ক্ষতি পূরণীয়ও নয়। আমরা শুধু আপনাদের বিপদের সময় পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছি। আমরা মনে করি সৃষ্টিকর্তা হয়তোবা আমাদের মাধ্যমে আপনাদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দিয়েছে। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পাঁচলাইল মডেল থানার এসআই (নিঃ) মোঃ আবদুল্লাহ আল নোমান, কাতালগঞ্জ সমাজ কল্যাণ পরিষদের সভাপতি ইমরানুল হক ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ রফিক, বন্ধন ক্লাবের উপদেষ্টা মাহমুদ রেজা সুজা, কাতালগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ এনামুল হক এবং আলহাজ¦ শাহজাহান সুফীসহ অন্যান্য অতিথিবর্গ।
উল্লেখ্য, গত জানুয়ারির ২৪, ৩১ মির্জারপুল ডেকোরেশন গলি’র এবং ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২০ খ্রিঃ তারিখে মাঝিরঘাটস্থ বেগম রাইচমিল (এসআরবি) বস্তিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড সংগঠিত হয়। এ অগ্নিকাণ্ডে ১৬টি কলোনীর আনুমানিক ৪৫০টি পরিবারের গৃহ ও নিত্য ব্যবহার্য সামগ্রী সম্পূর্ণ ও আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অগ্নিকাণ্ড সংগঠিত হওয়ার পরপর কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত বস্তিসমূহের সার্বক্ষণিক তথ্য সংগ্রহ শুরু করে। পরবর্তীতে জরুরি সাড়াদান কর্মসূচির আওতায় দাতাগোষ্ঠী স্টার্ট নেটওয়ার্কের আর্থিক সহায়তায় কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চল এ সহায়তা কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply