বাংলাদেশ, শনিবার, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

হাটহাজারী ফরহাদাবাদ কাদেরীয়া চিশতীয়া পরিষদের ৩১তম সুন্নি সম্মেলন সম্পন্ন

হাটহাজারী ফরহাদাবাদ কাদেরীয়া চিশতীয়া পরিষদের ব্যবস্থাপনায় পবিত্র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (দ.), ফাতেহায়ে ইয়াজদাহুম, গরীবে নেওয়াজ হযরত খাজা মুঈনুদ্দীন চিশতী (রহ.) এর বার্ষিক ওরশ মোবারক উদযাপন ও এলাকার সকল মরহুম-মরহুমাদের ঈসালে সাওয়াব উপলক্ষে আজিমুশান ৩১তম সুন্নি সম্মেলন ১৬ ফেব্রুয়ারি হাটহাজারী ফরহাদাবাদ মহিউদ্দিন মুন্সি বাড়ী প্রাঙ্গণে কাদেরীয়া চিশতীয়া পরিষদের সভাপতি এস.এম. রাকিব উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক আলহাজ্ব সৈয়দ আজম উদ্দিন। উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম ডক্টরস ল্যাব এন্ড ডক্টরস হাসপাতাল এর চেয়ারম্যান ডা. মুহাম্মদ নিজাম মোরশেদ চৌধুরী। মুখ্য আলোচক ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার।

মাওলানা মুহাম্মদ সিরাজ উদ্দিন আল কাদেরী ও মাওলানা মুহাম্মদ হোসাইনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সুন্নী সম্মেলনে বক্তারা বলেন, সুন্নিয়ত একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন দর্শনের নাম। মানুষের সামগ্রিক জীবনের দিক নির্দেশনা সুন্নিয়তের দর্শনে বিদ্যমান। পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও রাষ্ট্রীয় সকল বিষয়ে সুন্নিয়তের সামগ্রিক রূপরেখা বাস্তবায়নে তাই আমাদের সচেষ্ট হতে হবে। ইহজাগতিক সার্বিক কল্যাণ ও পরকালীন অনন্ত জীবনে মুক্তির দিশা পেতে সুন্নিয়তকে পরিপূর্ণভাবে আঁকড়ে ধরতে হবে।

প্রধান অতিথি আলহাজ্ব সৈয়দ আজম উদ্দিন বলেন, সুন্নিয়তকে খন্ডিতভাবে দেখার সুযোগ নেই। ইসলামের ফলিত দর্শনের নাম সুন্নিয়ত। তাই, সুন্নিয়তচর্চা মানে ইসলাম চর্চা। সুন্নিয়তের পূর্ণাঙ্গ অনুসৃতি ছাড়া সামগ্রিক মুক্তি মিলবে না। উদ্বোধক ডা. নিজাম মোরশেদ চৌধুরী বলেন, বিচ্ছিন্নতা ও বিক্ষিপ্ততা সুন্নিয়ত প্রতিষ্ঠার পথে বড় অন্তরায়। সুন্নিপন্থিরা সংগঠিত ও ঐক্যবদ্ধ না হলে বাতিল মতাদর্শীরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠবে। তাই, সুন্নিপন্থিদেরকে বড় সামাজিক শক্তি হিসেবে আবির্র্ভূত হতে হবে। মুখ্য আলোচক অ্যাডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার বলেন, হেফাজতের বাবুনগরীরা আজ মাজার খানকাহ ও ওলী বুজুর্গদের বিরুদ্ধে মাঠে ময়দানে বিষেদগার করে যাচ্ছে। তাদের এতো ঔদ্ধত্য ও স্পর্ধা দেখে দেশবাসী আজ শংকিত ও উদ্বিগ্ন। হেফাজতিদের কবল থেকে দেশ, ইসলাম ও মানুষকে বাঁচাতে সত্যপন্থী সুন্নি উলামা ছাত্র জনতাকে আজ ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। হেফাজতিদের ঈমান আক্বিদা পরিপন্থি বক্তব্য ও ষড়যন্ত্রের সমুচিত জবাব দিতে হবে। তিনি সুন্নি জনতাকে বিচ্ছিন্নতা থেকে বেরিয়ে এসে বড় সামাজিক ও রাজনৈতিক শক্তি হিসেবে উঠে আসার ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সুন্নি সম্মেলনে আলোচক ছিলেন রাঙ্গুনিয়া রানিরহাট আল আমিন হামেদীয়া ফাযিল মাদ্রাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা গাজী মুহাম্মদ আবুল কালাম বয়ানী, রাঙ্গামাটি বনরূপা কেন্দ্রীয় শাহী জামে মসজিদের খতিব মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা মুহাম্মাদ ইকবাল হোছাইন আল-কাদেরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন ফটিকছড়ি লায়লা-কবির ডিগ্রী কলেজের অধ্যাপক মাওলানা মীর মুহাম্মদ আবদুর রহিম মুনিরী, আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মুহাম্মদ লোকমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাদেরীয়া চিশতীয়া পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও হিজরি নববর্ষ উদযাপন পরিষদের মহাসচিব মুহাম্মদ এনামুল হক ছিদ্দিকী। অতিথি হিসেবে আরো ছিলেন মাওলানা গোলাম মুহাম্মদ খান সিরাজী, মাওলানা শেখ মুহাম্মদ আরিফুর রহমান, মাওলানা মুহাম্মদ নুরুচ্ছাফা, সৈয়দ ফখরুল ইসলাম নিজাম, এস.এম সাজ্জাদ আলী শহিদ, সংগঠক সৈয়দ মুহাম্মদ আবু আজম, শাহ্জাদা সৈয়দ মুহাম্মদ জামাল উদ্দীন, মুহাম্মদ উল্লাহ মেম্বার, মাওলানা মুহাম্মদ মনজুর মিয়া, মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল হামিদ আরজু, মাওলানা মুহাম্মদ লোকমান হোসাইন, মাওলানা মুহাম্মদ আলি মরতুজা সিরাজী, মাওলানা মুহাম্মদ অহিদুল আলম, মুহাম্মদ নুরুল আবছার, মুহাম্মদ মহসিন আলি, মুহাম্মদ আবদুল গনি, মুহাম্মদ সিরাজ উদ্দিন লিটন, মাওলানা হাফেজ মুহাম্মদ জাহেদুল আবেদীন, মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, মুহাম্মদ নাহিম উদ্দিন রিকু, মুহাম্মদ নুরুন্নবী মহরম, মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন, মুহাম্মদ জিয়া উদ্দিন বাবলু, মুহাম্মদ মঈনুদিন রিফান, মুহাম্মদ ফজলুল আমিন জুয়েল, মুহাম্মদ আসিবুর রিসাদ ফাহিম প্রমুখ। মিলাদ কিয়াম পরিবেশন শেষে মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ, বিশ্বের নিপীড়িত মানবতার পরিত্রাণ ও দেশ-বিশ্ববাসীর ওপর আল্লাহর রহমত কামনায় মুনাজাত করা হয়। হাজারো সুন্নি জনতা সুন্নি সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply