বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ২রা এপ্রিল, ২০২০ ইং, ১৯শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মুসলিম উম্মাহর আত্মার পরিশুদ্ধতা অর্জনে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) ভূমিকা অনস্বীকার্য দরবারে বারীয়া মাহফিলে মুফতি সৈয়দ শামছুদোহা বারী

মুসলিম উম্মাহর আত্মার পরিশুদ্ধতা অর্জনে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) এর ভূমিকা অনস্বীকার্য। মহান ¯্রষ্টার সর্বকালের সেরা সৃষ্টি প্রিয়নবীর (দ.) পবিত্র শুভাগমন উপলক্ষে আমার পীর ও মুর্শিদ ও আব্বাজান কেবলার প্রবর্তিত ও নির্দেশিত ঐতিহাসিক ১২ মাঘ ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) স্মরণে আয়োজিত ৫২ তম এ মাহফিলের জন্য আমার জীবন উৎসর্গ করেছি, আজীবন এ মাহফিল চলবে ইনশাল্লাহ। চট্টগ্রাম চান্দগাঁওস্থ দরবারে বারীয়া শরীফের সাজ্জাদানশীন পীরে ত্বরিকত ও জা-নশীন খলিফা আল্লামা মুফতি ছৈয়দ মুহাম্মদ শামছুদ্দোহা বারী (মজিআ) পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী মাহফিলে উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

আজ ২৬ জানুয়ারি রবিবার বাগান বাড়ীস্থ মখদুম শাহ জুলফিকার মঞ্জিলে অনুষ্ঠিত মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন, ভারতের দিল্লি দরগাহে নেজাম উদ্দীন মাহবুবে ইলাহী’র গদ্দীনশীন পীর হযরত খাজা ছৈয়দ শরীফ নেজামী (মজিআ), তিনি বলেন, ত্বরিকতের শিক্ষাই মানুষকে প্রকৃত ঈমানদার হিসেবে গড়ে তোলে। ত্বরিকত চর্চা ছাড়া মানব জীবনের সফলতা আসবেনা। তাই সবাইকে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আকীদা অনুসরণপূর্বক দ্বীনের খেদমত করে যেতে হবে। মাহফিলে বিশেষ অতিথি ছিলেন দরবারের নেজাম উদ্দীন মাহবুবে ইলাহীর শাহজাদা সৈয়দ আবদুর রেহমান নিজামী (মজিআ)। ইমাম আহলে সুন্নাত আল্লামা কাযী নুরুল ইসলাম হাশেমী (মজিআ) পাঠানো শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, দ্বীন ও মাযহাবের অসাধারণ খেদমত করে গেছেন ছৈয়দ আব্দুল বারী শাহজী বাবাজান কেবলা। তাঁর সুযোগ্য উত্তরসূরী বর্তমানে এই খেদমত আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছেন। দরবারে বারীয়া শরীফের এ মিলাদুন্নবী (দ.) মাহফিল আমাদের জন্য মডেল।

শাহজাদা ছৈয়দ আল্লামা আবুল মোকাররম বারীর পরিচালনায় ও ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপন কমিটির উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ২ দিনব্যাপী মিলাদুন্নবী (দ.) মাহফিলে বক্তব্য রাখেন দরবারে বারীয়ার মেঝ শাহজাদা ছৈয়দ সাইফুল ইসলাম বারী, ছৈয়দ এরশাদুল বারী, মাওলানা মুফতি মাসুদ রিজভী, মাওলানা সৈয়দ খায়রুল আমিন চিশতি, মাওলানা ইব্রাহিম খলিল আড়াইহাজারী প্রমুখ। বক্তারা বলেন, কোরআন সুন্নাহর আলোকে জীবন পরিচালনা করলে সমাজে অশান্তি থাকবেনা। উল্লেখ্য ২ দিনব্যাপী মাহফিলে দেশ-বিদেশের প্রায় লক্ষাধিক লোকের সমাগম হয়। শেষে দরবারের খেদমতে শামিলসহ উত্তরবঙ্গ, বৃহত্তর চট্টগ্রাম, ভারতের দিল্লি, ত্রিপুরাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আগত হাজার হাজার ভক্ত, মুরিদানের উদ্দেশ্য গুরুত্বপূর্ণ নসীহত পেশ ও আখেরী মুনাজাত পরিচালনা করেন, দরবারে বারীয়া শরীফের সাজ্জাদানশীন পীরে কামেল আল্লামা মুফতি ছৈয়দ মুহাম্মদ শামছুদ্দোহা বারী (মজিআ)। মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা সৈয়দ হাসান আযহারী, শুকছড়ি দরবারের সৈয়দ মুহাম্মদ এহসানুল হক চিশতি, মাওলানা এনাম রেজা কাদেরী প্রমুখ।

`

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply