বাংলাদেশ, সোমবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, ৪ঠা ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জনগনের জানমাল রক্ষায় সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে

 চট্টগ্রামে অংগীভূত আনসারদের সঙ্গে মত বিনিময় সভায় জেলা কমান্ড্যান্ট

জনগনের জানমাল রক্ষায় সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের জন্য  চট্টগ্রাম প্রশাসনিক জোনে নিয়োজিত অংগীভূত পিসি, এপিসি ও আনসার সদস্যদের প্রতি বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী জেলা কমান্ড্যান্ট চট্টগ্রামের উপ – পরিচালক  বিকাশ চন্দ্র দাস নির্দেশ প্রদান করেন । ১৪ জানুয়ারী সকাল ১০.০০ টায় চট্টগ্রাম আসকার দিঘিরপাড় জেলা কমান্ড্যান্টের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত অংগীভূত আনসারদের সঙ্গে মত বিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী দেশের সর্ব বৃহৎ শৃঙ্খলা বাহিনী। দেশের বিপুল জনগোষ্ঠীর নিরাপত্তা ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে অগ্রণী ভূমিকা রেখে চলেছে। উন্নত আইন শৃঙ্খলাই হলো উন্নয়নের অন্যতম প্রধান শর্ত। জাতীয় নিরাপত্তা ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর অবদান অপরিসীম। সরকারী, বে-সরকারী গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা গুলোতে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত রয়েছে আনসার বাহিনীর সদস্যরা। “শান্তি, শৃঙ্খলা, উন্নয়ন, নিরাপত্তায় সর্বত্র আমরা” এই মূল মন্ত্রকে বুকে ধারণ করে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে এ বাহিনী।

দেশের অন্যতম বাণিজ্য নগরী চট্টগ্রামে উৎপাদনশীল শিল্প প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন বন্দরসহ সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা, আইন শৃংঙ্খলা রক্ষা ও আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখছে অংগীভূত আনসার সদস্যগন। হাজার হাজার কোটি টাকার পণ্য উৎপাদনশীল শিল্প প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা ও জানমাল রক্ষায় অংগীভূত আনসার সদস্যগণ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিরলসভাবে তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।এছাড়াও বাস টার্মিনাল, বিমান বন্দর, লঞ্চ ঘাট, ব্যাংক বীমাতেও তারা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা কমান্ড্যান্ট বলেন, শৃঙ্খলার মান আরো বৃদ্ধি করতে হবে। মানবিক দিক বিবেচনায় রেখে আনসারদের সুযোগ সুবিধা প্রদান করতে হবে। তিনি আনসার সদস্যদের বেতন-ভাতা যথাসময়ে পরিশোধের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেন। পিসি এপিসি ক্যাম্প ইনচার্জদেরকে বলেন, সুস্থ থাকার জন্য পিটি, প্যারেড ও খেলাধূলার ব্যবস্থা অব্যাহত রাখতে হবে। কোন প্রকার অনিয়ম এবং শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যক্রমের জন্য কঠোর শাস্তি প্রদান করা হবে। জেলা কমান্ড্যান্ট  পিসি, এপিসি ও আনসার সদস্যদের বিভিন্ন সমস্যার কথা আন্তরিকভাবে শোনেন এবং তিনি তা যথাযথ ভাবে সমাধানের আশ্বাস প্রদান করেন।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম জেলার সহকারী পরিচালক মোঃ আসাদুজ্জামান, সার্কেল অ্যাডজুটান্ট মোঃ আমির হোসেন, বন্দর থানা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা  আঃ রশিদ আহম্মদ, ফটিকছড়ি উপজেলার আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মোঃ সাইদুল ইসলাম প্রমুখ। চট্টগ্রাম আনসার প্রশাসনিক জোনের উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা, প্রশিক্ষক-প্রশিক্ষিকা, ১৬৭টি আনসার ক্যাম্প হতে পিসি, এপিসি ও আনসারসহ ৩ শতাধিক সদস্য মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply