বাংলাদেশ, রবিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর সাথে বাংলাদেশের ইতিহাস অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত : ইকবাল হোসাইন খান

 মুহাম্মদ হারুনুর রশীদ, আরব আমিরাত

দুবাই বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল মুহাম্মদ ইকবাল হোসাইন খান বলেন, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ছিলেন একজন আদর্শ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, গণমানুষের প্রিয় নেতা ,সফল উদ্যোক্তা, গরিব-দুঃখী-মেহনতি মানুষের পরম বন্ধু এবং খাঁটি দেশপ্রেমিক।’ আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু’র ৭ম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ‘আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু আমৃত্যু দলের নেতাকর্মী এবং সাধারণ মানুষের পাশে থেকে প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে ভালবেসে গেছেন। দেশ এবং দেশের মানুষ ছিল তাঁর পরম আত্মার আত্মীয়। তিনি দেশের প্রতিটি ইঞ্চি মাটি এবং প্রতিটি মানুষকে ভালবাসতেন হৃদয় দিয়ে।তাঁর সাথে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ তথা বাংলাদেশের ইতিহাস অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত।

ইকবাল হোসাইন খান আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুকে বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর উল্লেখ করে বলেন, একজন সৎ ও আদর্শবান রাজনীতিবদ হিসেবে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার পথে মরহুম বাবু ছিলেন নিবেদিত প্রাণ পরিশ্রমী কর্মী। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মানবতার জননী, জননেত্রী শেখ হাসিনার সমৃদ্ধশালী সোনার বাংলা বিনির্মাণ ছিল তাঁর একমাত্র লক্ষ্য। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্য প্রতিটি কল্যাণময় কাজে প্রবাসীদের সম্পৃক্ত থাকতে হবে।

গত ২৯ নভেম্বর ( শুক্রবার ) স্থানীয় সময় রাত ৯ টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের বাংলাদেশ সমিতি, শারজাহ’র নিজস্ব ভবনে আলহাজ্ব আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ফাউন্ডেশন – সংযুক্ত আরব আমিরাত, কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজিত স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সহ সভাপতি এম.এ করিম । সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা এস. এম সালাহ উদ্দীন চৌধুরী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নাছিরের যৌথ সঞ্চালনায় এতে এতে বিশেষ অতিথি অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন:সংগঠনের উপদেষ্টা নুর মুহাম্মদ, মুহম্মদ ইদ্রিস, বাংলাদেশ সমিতি শারজাহ’র ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ইসমাঈল গনি চৌধুরী, দুবাই বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি কাজী মুহাম্মদ আলী, শারজাহ গাউসিয়া কমিটির সাবেক সভাপতি আজম খান, শারজাহ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আল ফালাক গ্রুপের চেয়ারম্যান সি আই পি মুহাম্মদ সেলিম,দুবাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক চৌধুরী, দুবাই বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শফিউল আজম মুনির, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা প্রবাসী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদ আলী, আরব আমিরাত বঙ্গবন্ধু পরিষদের সহ সভাপতি এমরানুল হক বাবুল ও সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ নেজাম ।

এতে অন্যন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন : মুজিবুর রহমান, ইয়াসিন চৌধুরী শিহাব, এয়ার মুহাম্মদ এয়ারু, মুহাম্মদ ইব্রাহিম, মুহাম্মদ বেলাল, রায়হানুল ইসলাম চৌধুরী সবুজ, মুহাম্মদ মোরশেদুল আলম, মু্হাম্মদ ইদ্রিস হুমায়ুন, আব্দুল করিম, সাইফুদ্দীন সাইফু, মু্হাম্মদ ওয়াহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন,আখতারুজ্জামান বাবু ছিলেন বিশাল হৃদয়ের অধিকারী। তার দরজা সবার জন্য উম্মুক্ত ছিল। সমস্যায় পড়লে তাঁর চরম শত্রুও তাঁর কাছে যেতেন। তিনি মানুষের বিপদে-আপদে দরদি হৃদয় নিয়ে এগিয়ে আসতেন, সহযোগিতা আর সহমর্মিতার হাত বাড়িয়ে দিতেন। অন্যদিকে দলের দুঃসময়ে, প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে রাজপথে তার সরব উপস্থিতি নেতাকর্মীদের করত উজ্জীবিত।তাঁর ছোঁয়ায় নেতাকর্মীরা মুজিবীয় চেতনাকে শাণিত করে দীপ্ত পদ ভারে রাজপথ কাঁপাতেন। তাই বৃহত্তর চট্টগ্রামের আওয়ামী রাজনীতির অভিভাবক আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর স্মৃতি স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বক্তারা ৭৫ পরবর্তী বাবুর অবদানের কথা বলতে গিয়ে বলেন, ’৭৫-পরবর্তী আওয়ামী লীগকে সংগঠিত করার ক্ষেত্রে বাবু ভাইয়ের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ৭৫-এ বঙ্গবন্ধু সপরিবারে শহীদ হওয়ার পর আওয়ামী লীগের পাশে যে ক’জন বুক ফুলিযে দাঁড়িয়ে ছিলেন, বাবু ছিলেন তাঁদের অন্যতম। তিনি দলের প্রতি নিবেদিত প্রাণ নেতাকর্মীদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে দলটিকে ধ্বংশের দ্বারপ্রান্ত থেকে টেনে নিয়ে ক্ষমতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন। যেসব নেতার কারণে আওয়ামীলীগ বহু কঠিন পথ পাড়ি দিয়ে আজকের অবস্থানে এসেছে, বাবু ভাই ছিলেন তাঁদের একজন। ➤দোয়া মাহফিল : অনুষ্ঠানের শুরুতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এস.এম সালাহ উদ্দীন চৌধুরীর শুভেচ্ছা বক্তব্যের পর হাফেজ মাওলানা সিরাজের পরিচালনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। খতমে কুরআন, দরুদ শরীফ পাঠ এবং মোনাজাতের মাধ্যমে দোয়া মাহফিল সম্পন্ন হয়।মোনাজাতে আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর আত্মার মাগফেরাত এবং দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করা হয়।

➤বাবু প্রেমিকদের মিলন মেলায় পরিণত মেজবান : মরহুম আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিলের পাশাপাশি মেজবানেরও আয়োজন করা হয়। আরব আমিরাতের বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত প্রবাসী বাবু প্রেমিকদের মিলন মেলায় পরিণত হয় মেজবান অনুষ্ঠান।

আরো খবর

Leave a Reply

Close