বাংলাদেশ, শনিবার, ৮ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মঈন উদ্দিন খান বাদল ছিলেন রাজনীতির বরপুত্র

‘বিজয়’৭১ এর উদ্যোগে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল

 

চট্টগ্রাম-৮ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা, প্রখ্যাত পার্লামেন্টারিয়ান অনলবর্ষী বক্তা মঈন উদ্দিন খান বাদলের মৃত্যুতে ‘বিজয়’৭১ এর উদ্যোগে ও সম্মিলিত মুক্তিযোদ্ধা সন্তান পরিষদের সার্বিক সহযোগিতায় নগরীর সুপ্রভাত স্টুডিও হলে বিকাল ৪ টায় এক শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
‘বিজয়’৭১ এর সভাপতি নাট্যজন সজল চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও বিপ্লব দাশগুপ্ত’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত শোকসভায় প্রধান আলোচেক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ড. গাজী সালেহ উদ্দিন। বিশেষ আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা ফজল আহমেদ, জেলা পরিষদ সদস্য শাহিদা আক্তার জাহান, বীর মুক্তিযোদ্ধা ভানু রঞ্জন চক্রবর্তী, বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদশা মিয়া, এম.এ সবুর, বিজয় ৭১ এর প্রতিষ্ঠাতা লায়ন ডা: আর.কে রুবেল, উত্তর জেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক এস.এম আখতারুল আলম ও আব্দুল লতিফ।
স্মৃতিচারণ করে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, জহুর লাল দে, অমর কান্তি দত্ত, রোটারিয়ান মো: মুনির আজাদ, লায়ন আবু ছালেহ, ডা: এস.কে পাল সুজন, ডা: অপূর্ব ধর, আনিস আহমেদ খোকন, ডা: বেলাল হোসেন উদয়ন, আসিফ ইকবাল, মৃনাল কান্তি দাশ, বোরহান উদ্দিন গিফারী, লাভলু চক্রবর্তী, ডা: প্রণব মজুমদার, শবনম ফেরদৌসি, শাহিন ফেরদৌছি, উল্লাস বড়–য়া প্রমুখ।
সভায় প্রধান আলোচক বলেন, সংসদ সদস্য মঈন উদ্দিন খান বাদল ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের একজন দক্ষ পার্লামেন্টারিয়ান। তাঁর মতো একজন পার্লামেন্টারিয়ান জাতীয় সংসদে থাকাতে সংসদ সবসময় আলোকিত ও প্রাণবন্ত ছিল। তিনি যেমন ছিলেন অনলবর্ষী বক্তা, তেমনি ছিলেন একজন খাঁটি দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদ। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি একজন বিশিষ্ট রাজনীতিবিদকে হারালো। তাঁর শূন্যস্থান সহজে পূরণ হওয়ার নয়। তিনি ছিলেন রাজনীতির অসাম্প্রদায়িক বরপুত্র। সভায় বক্তারা, মঈন উদ্দিন খান বাদলের স্মৃতি রক্ষায় চট্টগ্রামের কালুরঘাট সেতু তাঁর নামে নামকরণের দাবি জানান। এজন্য যথাযথ উদ্যোগ গ্রহণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।
শোকসভার পূর্বে এক মিনিট নিরবতা পালন ও শেষে মরহুমের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply