বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভোলায় দফায় দফায় সংঘর্ষ, নিহত ৪

বোরহানউদ্দিন উপজেলা প্রতিনিধি

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় ফেসবুকে মহানবী (সা.)কে নিয়ে ‘অবমাননাকর পোস্টের’ প্রতিবাদে বিক্ষোভকারী ও পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ৪ জন নিহত ও ৯ জন গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হন পুলিশসহ শতাধিক মানুষ।

নিহতরা হলেন- মাহাফুজ, মিজান, শাহীন ও মাহবুব। আর গুলিবিদ্ধরা হলেন- মিজানুর রহমান (৩০), নান্টু (৪০), মাকসুদুর রহমান (১৮), তানভীর (৩০), অ‌লিউল্লাহ (৪০), সি‌দ্দিক (২৮), তাহের, শামীম ও সোহরাব।

এদিকে, বোরহানউদ্দিন উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মাঠে নামছে ৪ প্লাটুন বিজিবি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, ফেসবুকে মহানবী (সা.) ও বিবি ফাতেমাকে নিয়ে ফেসবুকে ‘অবমাননাকর মন্তব্যের’ অভিযোগে শনিবার (১৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় পুলিশ এক যুবককে আটক করে। এ ঘটনায় ‘অবমাননাকর বক্তব্যের’ প্রতিবাদে রোববার (২০ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে কয়েক হাজার মুসল্লি বোরহানউদ্দিন উপজেলা সদরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। কিন্তু সমাবেশ শেষ করতে তাগাদা দেন পুলিশ। একপর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে উভয়পক্ষ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গুলি ছোড়ে। এতে সাংবাদিক-পুলিশসহ আহত হন শতাধিক। আহতদের বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ভোলা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজনের মৃত্যু হয়। তারা হলেন- বোরহানউদ্দিন পলিটেক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী শাহীন (২১) ও স্থানীয় কওমী মাদ্রার ছাত্র মাহবুব পাটোয়ারী (১৬)। অপরজন মারা যান ভোলা সদর হাসপাতালে।

ভোলার সিভিল সার্জন রথীন্দ্রনাথ মজুমদার তিনজন নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বোরহানউদ্দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দুজনের মরদেহ এবং সদর হাসপাতালে নাম না জানা এক ব্যক্তির মরদেহ রাখা হয়েছে।

ভোলা জেলা পুলিশ সুপার সরকার মো. কায়সারও তিনজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অনুমতি ছাড়াই তারা সমাবেশ করতে চেয়েছিল। আমরা দ্রুত সমাবেশ শেষ করতে বলি। কিন্তু তারা আমাদের ওপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি ছুড়তে বাধ্য হই আমরা।

স্থানীয় সূত্র জানা যায়, বোরহানউদ্দিনে বিপ্লব চন্দ্র শুভ নামের এক যুবক শুক্রবার বিকালে নিজ ফেসবুক আইডি থেকে কয়েকজনের সঙ্গে মেসেঞ্জারে আল্লাহ ও রাসূল (স.)-কে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন। একপর্যায় কয়েকটি আইডি থেকে ম্যাসেজগুলোর স্ক্রিন শর্ট নিয়ে ফেসবুকে কয়েকজন প্রতিবাদ জানালে বিষয়টি সকলের নজরে আসে। পরবর্তীতে ফেসবুকজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে।

আরো খবর

Leave a Reply