বাংলাদেশ, সোমবার, ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ক্লীন ইমেজের মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হলে আনোয়ারাবাসী জেগে উঠবে

এম.আলী হোসেন

ক্লীন ইমেজের মন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদকে নিয়ে ষড়য্ন্ত্র শুরু হয়েছে । কেউ কেউ তার কাঁধে ভর করে নিজেদের স্বার্থ উদ্ধার করছে।মন্ত্রীর দোহাই দিয়ে পার পেতে কৌশল করছে অনেকে । মন্ত্রী মহোদয়কে আন্তরিক ভাবে ভালবাসেন এমন মানুষেরাও মুখ খুলতে শুরু করেছে।মন্ত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হলে আনোয়ারাবাসী জেগে উঠবে এমন তথ্য মিলছে আমাদের অনুসন্ধানে।

দেশ স্বাধীনের পর দীর্ঘ  ৪২ বছর ধরে আনোয়ারার ভাগ্যে মন্ত্রীত্ব জুটেনি।মন্ত্রীত্ব পাবার যোগ্য নেতার অভাবও ছিল না এখানে ।বাবু-কায়সার  দু’জনই কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা, আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা ও তাদের গ্রহণযোগ্যতা ছিল ইর্ষণীয়। কিন্তু তবু আনোয়ারাবাসীর কপালে পতাকাবাহী নেতৃত্ব কিংবা মন্ত্রীত্ব জুটেনি । ব্যবসায়ীমহলের প্রিয় নেতা সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ ভুমি প্রতিমন্ত্রীর মাধ্যমে এই জনপদের মানুষ প্রথমে মন্ত্রীত্ব পেয়েছেন।যা ছিল আনোয়াবাসীর জন্য অহংকার ও আনন্দের। যোগ্যতার স্বাক্ষর রেখে  ‘প্রতি’ থেকে পূর্ণমন্ত্রী লাভ এই অঞ্চলের মানুষের জন্য পরম পাওনা ও গর্বের। ‘জাবেদ সাহেব আমাদের অহংকার ও গর্বের ধন’ এই কথা আনোয়ারা ও দক্ষিণ চট্টগ্রামের মানুষের মুখে মুখে।

পূর্ণমন্ত্রী হয়ে সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ প্রথমে ঘোষনা দিলেন প্রধানমন্ত্রীর আস্হার পূর্ণ মর্যদা দেবেন, এইজন্য পরিশ্রম করে চলেছেন তিনি ।প্রধানমন্ত্রীর বিশ্বাসের মর্যদা রক্ষার্থে তিনি কাজও শুরু করে দিয়েছেন। পরিশ্রম করছেন দিন-রাত।প্রধানমন্ত্রীর গুডবুকে স্হান করে নিচ্ছেন তিনি যা সচেতন লোকজন সহজেই বুঝতে পারছেন।

গোটা চট্টগ্রামের মানুষ যখন ভুমি মন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ তখনই অপরিপক্ক কিছু লোক ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমে গুজব, অর্ধ সত্য কথা ও তালগোল পাকিয়ে নানান কথা ছড়াচ্ছে ।বহু অভিজ্ঞ ও মন্ত্রীভক্ত মানুষের সাথে কথা বলে ও আমাদের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এইসব গ্রুপিং ও কাঁদা ছুড়াছুড়ির কারণে মন্ত্রীর ক্লীন ইমেজের সংকট তৈরী করবে।মন্ত্রী ভক্তরা বলছেন, এই রকম পরিস্হিতিতে বৃহত্তর মণ্ত্রণালয়ের কাজেও মন্ত্রীর ব্যাঘাত ঘটবে এবং অদৃশ্য শক্ররাও ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চাইবে। চাই, এখনই এসবের সমাধান। চাই মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে দলাদলি বন্ধ।চাই, চোখলখোরদের মিথ্যাচার বন্ধ ও প্রকৃত স্পষ্টভাষী ত্যাগীদের মূল্যায়ন।মন্ত্রী ভক্তরা এমন দাবীও করেছেন , ৩ থেকে ৪ যুগ ধরে যারা পদ – পদবী ছাড়া দলের হয়ে  কাজ করছেন, কিছু না পেয়েও দল ত্যাগ করেনি তাদের যথাযথ মূল্যায়ন। তারা এও বলেছেন, মন্ত্রী মহোদয়কে সবসময় বিতর্কের বাইরে রাখতে হবে।

আরো খবর

Leave a Reply